‘সুপার ইমার্জেন্সি’ চলছে দেশে! সেই পুরনো অস্ত্রেই শান দিচ্ছেন মমতা

0
766
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ফের একবার গর্জে উঠলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নরেন্দ্র মোদী ও তাঁর দ্বিতীয় সরকারের সঙ্গে আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্ক বজায় রেখে বর্তমান পরিস্থিতির সমালোচনায় মুখর হলেন তিনি। রবিবার সকালে আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে জনগণের উদ্দেশে নিজেদের অধিকার এবং স্বাধীনতা রক্ষার ডাক দিলেন দিলেন মমতা। নিজের টুইটে ফের একবার তিনি দাবি করেছেন, দেশে এই মুহূর্তে ‘সুপার ইমার্জেন্সি’র অবস্থা চলছে।

মমতা লেখেন, ‘আজ আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে আসুন আমরা আবারও আমাদের দেশের যে সংবিধানিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, তা রক্ষার অঙ্গীকার করি। ‘সুপার ইমার্জেন্সি’-র এই যুগে আমাদের সংবিধান যে অধিকার এবং স্বাধীনতা দেয় সেগুলি রক্ষা করতে আমাদের যা যা করা উচিত তা অবশ্যই আমাদের করতে হবে।’ নিজের টুইটারে লেখেন মমতা। তবে এই প্রথম নয়, প্রাক লোকসভা পর্ব থেকেই দেশে সুপার ইমার্জেন্সির পরিস্থিতি চলছে বলে তোপ দেগে এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনও আক্রমণের সেই কায়দাই বজায় রাখলেন তিনি। তৃণমূল সুপ্রিমোর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দেশের সংবিধান লঙ্ঘন করেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার।

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালে রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ পর্ষদ প্রত্যেক বছর ১৫ সেপ্টেম্বরের দিনটিকে আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস হিসেবে উদযাপন করার সিদ্ধান্ত নেয়। বিশ্বজুড়ে গণতন্ত্রের মর্যাদা বোঝাতেই এই দিনকে বিশেষভাবে পালন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত জুন মাসে জরুরি অবস্থার ৪৪ বছরের পূর্তিতেও একইভাবে কেন্দ্রকে খোঁচা মারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জরুরি অবস্থাকে ‘ইমার্জেন্সি’ বলে অভিহিত করা হলেও মোদী সরকারের শাসনকালকে ‘সুপার ইমার্জেন্সি’ বলে ডাকতেই বেশি পছন্দ করেন মমতা। ১৯৭৫ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী এই ইমার্জেন্সি জারি করেছিলেন যা ১৯৭৭ সালের ২১ মার্চ পর্যন্ত জারি ছিল।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here