নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা সচেতনতায় এবার মুখ্যমন্ত্রীর সতর্কবাণীর ক্যাসেট বাজবে পাড়ায় পাড়ায়। এই উদ্যোগ নেওয়া হল কলকাতা পুরসভার তরফে। শনিবার এমনটাই জানান পুরমন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। এই ব্যবস্থার ফলে খুব সহজেই মানুষের কাছে সচেতনতার বার্তা পৌঁছে দেওয়া যাবে। অন্যদিকে কর্মীদেরও খাটনিও অনেকটা কমবে। এই সমস্ত দিকের কথা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা যায় কলকাতা পুরসভার তরফ।

এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ জানান, ‘করোনাকে নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে। কলকাতার মানুষের কাছে আরো প্রচার আমরা করছি। হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক বাধ্যতামূলক করতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী সতর্কবাণীর ক্যাসেট পাড়ায় পাড়ায় বাজানো হবে।’ অন্যদিকে সচেতনতার দায় সাধারণ মানুষকেই নিতে হবে। সচেতন না হলে করোনাকে হারানো যাবে না বলে মত প্রকাশ করেছেন ফিরহাদ হাকিম। তাঁর কথায়, ‘লকডাউনের এর মধ্যেই সচেতন হতে হবে মানুষকে। যাতে পরবর্তীতে পথে নামতে অসুবিধা না হয়।’

উল্লেখ্য, শহরে একাধিকবার ট্যাবলো বার করে, গান বাজিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির প্রয়াস নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। এই সচেতনতা তালিকায় যেমন রয়েছে ডেঙ্গু প্রতিরোধের নিয়মাবলী, তেমনি এই তালিকায় স্থান পেয়েছে বেআইনিভাবে পার্কিং রোধ করার পরামর্শ। এছাড়াও কলকাতা পুরসভার পাঁচ বছরের কর্মকাণ্ডের খতিয়ান তুলে ধরেও পাড়ায় পাড়ায় ট্যাবলো ঘুরেছিল। এইবার করোনা প্রতিরোধে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে সেই একই পন্থা অবলম্বন করল কলকাতা পুরসভা।

এতদিন পুরকর্মীরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করছিলেন। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নিচ্ছিলেন কারোর জ্বর গলাব্যথা রয়েছে কিনা। এই সব কর্মকাণ্ড সাথেই এবার যোগ হলো মুখ্যমন্ত্রী সতর্কবাণী পাড়ায় পাড়ায় বাজানোর প্রক্রিয়া। কিন্তু ট্যাবলো পথে ঘুরিয়ে, নাকি পাড়ায় মাইক বেঁধে মুখ্যমন্ত্রীর সতর্কবাণীর ক্যাসেট চলবে সে বিষয়ে এখনও কিছু স্পষ্ট করা হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here