ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রীর ছবি নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। তা মুখ্যমন্ত্রীর আঁকা ছবি হোক বা তাঁর নিজের মুখমণ্ডলের ছবি। শহর মোড়া বিজ্ঞাপণের ইতিউতি যেখানে তাকান সব জায়গায় চোখে পড়বে একগাল হাসি ভরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি। তা সে ল্যাম্প পোস্ট থেকে শুরু করে বাড়ির দেওয়াল, বাস স্টপেজ, নন্দন চত্তর এমনকি মনিষীদের বাণীর পাশেও হাসি হাসি মুখে বিরাজমান বাংলা মুখ্যমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক বিতর্ক তৈরি হলেও ধিরে ধিরে তা গা সওয়াও হয়ে গিয়েছে রাজ্যবাসীর। সবকিছুর পাশাপাশি শিক্ষা দফতরের নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী এবার রাজ্যের প্রতিটি স্কুলেও শোভা পেতে চলেছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ছবি।

সম্প্রতি রাজ্যের প্রতিটি সরকারি ও সরকার অনুমোদিত স্কুলে এক নতুন নির্দেশিকা পাঠিয়েছে রাজ্য শিক্ষা দফতর। যেখানে বলা হয়েছে, স্কুলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে এমন জায়গায় টাঙাতে হবে মুখ্যমন্ত্রীর ব্যানার। শুধু তাই নয়, যে ব্যানার টাঙাতে হবে তার সফট কপিও স্কুলগুলিকে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে শিক্ষা দফতরের তরফে। কিন্তু কেন হঠাৎ স্কুল গুলিতে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি টাঙাতে উৎসাহী হয়ে উঠল তারা। এ বিষয়ে শিক্ষা দফতরের তরফে জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালের মেরিট-কাম-মিনস স্কলারশিপে’র প্রচারের জন্যই ওই ব্যানার টাঙানোর নির্দেশ দিয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতর। তবে উপর মহলের এহেন নির্দেশে বেশ কিছুটা অসন্তুষ্ট কিছু স্কুল। মুখে কিছু না বললেও ভিতরে ভিতরে ক্ষোভে ফুঁসছে তারা।

উল্লেখ্য, কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল উপলক্ষ্যে মুখ্যমন্ত্রীর ছবিতে নবান্ন মুড়ে ফেলার পর গোটা রাজ্য জুড়ে উঠেছিল বিতর্কের ঝড়। সোশ্যাল মিডিয়া ছেয়ে গিয়েছিল মমতা বিরোধী একের পর এক পোস্টে। কোথাও বা বলা হয়েছিল সত্যজিৎ, ঋত্বিক ঘটকের মতো একাধিক নামি পরিচালককে উড়িয়ে দিয়ে সিনেমার পিঠস্থান মমতার ছবিতে ভরিয়ে দেওয়া এক নিম্ন রুচির পরিচয়। তো কেউ আবার জানিয়েছেন, মমতা ব্যানারে নিজের মুখ দেখতে খুব ভালোবাসেন তাই এই ব্যানার। সব কিছুর পর এবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ঢোকাতে তৎপর হল স্কুল শিক্ষা দফতর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here