ডেস্ক: অনেক আকর্ষণই ছিল জনজোয়ারে ভাসা ২১ জুলাইয়ের মঞ্চকে ঘিরে। একাধিক কংগ্রেস নেতা তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পাশাপাশি। নাচ-গান, উৎসব, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, পার্থ চট্টপাধ্যায়, শুভেন্দু অধিকারী, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের মতো নেতা নেত্রীদের জ্বালাময়ী বক্তৃতার পাশাপাশি এদিনের মুখ্য আকর্ষণ অবশ্যই ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঞ্চে উঠেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, ‘২১শের মঞ্চে তৃণমূলের অঙ্গীকার একটাই, বাংলার লোকসভার সিট ৪২ টা, লোকসভা ভোটে তার সবকটি দখল করবে তৃণমূল এই আমাদের অঙ্গীকার।’ একইসঙ্গে একুশের মঞ্চ থেকে তিনি আরও জানিয়ে দেন, ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে হবে সভা। যেখানে ফেডারেল ফ্রন্ট সংগঠিত হবে, সারা দেশের নেতারা আসবেন এই ব্রিগেডে। বাংলা পথ দেখাবে সারা ভারতকে।

 

এদিনের মঞ্চে মমতা বলেন…

  • যারা ভালো করে প্যান্ডেল বাঁধতে পারে না তারা নাকি বাংলাকে পথ দেখাবে। সিপিএমের হার্মাদরাই আজ বিজেপির ওস্তাদ। আর কয়েকটা গদ্দার গদ্দারি করে বেড়াচ্ছে রাজ্যে।
  • গতকাল সংসদে ভোট হয়েছে যেখানে ৩২৫ ভোট পেয়েছে ওরা। ওই ভোটটা ১৯ শে ১০০ তে দাঁড়াবে কিনা সন্দেহ আছে। ঘরের ভিতরে নম্বরে জিতেছে। কিন্তু ঘরের বাইরে অবস্থা খারাপ। গণতন্ত্র জিতবে বাইরে কোনও দাঙ্গাবাজ নয়।
  • কথা বললেই সিবিআই, এজেন্সির ভয় দেখাচ্ছে, আমাদের সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেলে ভরা হয়েছিল। ছেড়ে কথা বলব না আমরা।
  • দেশজুড়ে বিজেপি ঘৃণা শেখাচ্ছে। ওদের জ্ঞান আমরা শুনব না। ওরা হিটলার-মুসোলিনির থেকেও নিজেদের বড় মনে করছে। এই তালিবানি সাম্প্রদায়িকতা ভাঙো। ওরা লুটেরা, অত্যাচার চালাচ্ছে। ওরা হল তোলয়ার, জ্বালিয়ে দাও হিন্দু। দলিত সঙ্খ্যা লঘুদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে ওরা।
  • মণিপুরে সমস্যা তৈরি করেছে। অসমে বাঙালি খেদাও চলছে, আমি অসমিয়াদের ভালোবাসি।
  • হাসপাতালে ২৮ হাজার বেড বেড়েছে, ৩০ লাখ বাড়ি, ৫ লাখ পাট্টা দেওয়া হয়েছে, গতকাল কাগজ দেখে এক ছাত্রকে সাহায্য করেছি, সিভিক পুলিশ নেওয়া হয়েছে। প্যারা টিচারদের মাইনে বাড়িয়েছি। সিভিক ভলান্টিয়ারদের হোমগার্ড করে দেওয়া হবে। মাইনে বেড়ে যাবে।
  • বাংলায় বিনা পয়সায় চিকিৎসা হয়। ১০০ দিনের কাজে বাংলা ১ নম্বর। এই লোকসভায় উত্তরপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশে সিট কমবে বিজেপির। আগামীদিনে তামিলনাড়ুতে এআইডিএমকে আর সিট পাবে না।
  • বাইরের লোক এসে RSS-এর নেতা সেজে বসে যাচ্ছে ব্লকে ব্লকে। এগুলো নজর রাখুন। মিথ্যা গুজব ছড়াচ্ছে। টাকা বিলি করে ভোট কিনছে।
  • আমি কংগ্রেস, সিপিএমকে বলব, এখানে বিজেপিকে মদত দেবেন, আর দিল্লিতে আমাদের সাহায্য চাইবেন, সেটা হবে না। আগামী ২১ জুলাই ভারত জয় করার ২১ জুলাই হবে।
  • আলিপুরদুয়ারে টাকা দিয়ে ভোট কেনা হয়েছে। বিজেপি এলাকায় এলাকায় টাকা দিচ্ছে, বাইক দিচ্ছে, মোবাইল দিচ্ছে। বিজেপি টাকা দিয়ে লোক আনে। কিন্তু সমস্যা এটাই এত লোক টাকা দিয়ে আসে না, ভালোবেসে আসে। পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরও ভোট হয়েছে, আমরা জিতেছি। ওদের লজ্জা, ঘৃণা নেই বিরোধীদের জন্য দুঃখ হয়। জঙ্গলমহলে অনেক আসনে তৃণমূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেনি, কই আমরা তো কিছু বলিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here