FotoJet-112

ডেস্ক: বুনিয়াদপুরে মোদী, পানিঘাটায় মমতা! জোড়া সভার জেরে রাজনৈতিক উত্তাপ ও উত্তেজনায় ফুটছে বাংলা। বালুরঘাটের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর একের পর এক বেনজির আক্রমণ করেন মোদী। পাল্টা নদিয়া থেকে হাতে গুনে গুনে সব সওয়ালের জবাব দিলেন মমতা। তবে এদিনের সভা শুরুর আগে সভাস্থলে অব্যবস্থার জেরে মেজাজ হারান মুখ্যমন্ত্রী। মাইকে কথা বলা বন্ধ করে সোজা বসে পড়েন তিনি।

বুনিয়াদপুরের সভা থেকে মমতার বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগেন মোদী। বাংলায় নাকি পুজো বন্ধ করে দিচ্ছে তৃণমূল সরকার। এমনই অভিযোগ তুলেছেন মোদী। পাল্টা পানিঘাটার সভায় জনতার উদ্দেশ্যে মমতা প্রশ্ন করেন, ‘আমাদের এখানে দুর্গাপুজো হয়? লক্ষ্মীপুজো হয়? আর উনি বলে যাচ্ছেন এখানে নাকি পুজো হয় না? একের পর এক মিথ্যা বলে যাচ্ছেন।’ মমতা আরও বলেন, ‘সাহস থাকা ভাল। দুঃসাহস ভালো নয়। এসে বলছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিছু করেনি। আমি কী করেছি সেই জবাব মানুষ দেবেন। ৫ বছরে আপনি কী করেছেন তার জবাব দিন।’ এরপরই মোদীকে নয়া এক অস্ত্র বিঁধেন মমতা। বলেন, ‘মোদীর হারাতঙ্ক’ রোগ হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাখ্যা, পাগলা কুকুর কামড়ালে জলাতঙ্ক হয়, উনি হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন। রোজ উল্টোপাল্টা বকে যাচ্ছেন। মানুষের মুণ্ড কেটে ফুটবল খেলা হয়েছে, গণপিটুনি হয়েছে। মিথ্যা কথা বলতে বলতে ওদের জিভে পোকা পড়ে গেছে।’

তবে এদিনের সভা শুরু হওয়ার আগেই তাল কাটে সভার। সভাস্থলে অব্যবস্থার জেরে মেজাজ হারিয়ে ফেলেন মমতা নিজেও। ভিড়ের জন্য হট্টগোলের জেরে তৃণমূল নেত্রীর বক্তব্য শুরু করতেও বেগ পেতে হয়। কিন্তু বক্তব্য শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই ফের গণ্ডগোল শুরু হয়। মাইক হাতে নিয়ে বলতে থাকেন, বসে পড়ুন, শান্ত হোন।’ শেষ পর্যন্ত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ করে মমতা বলেন, ‘এসব আগে দেখে রাখোনি কেন? আমি এসে মাইক হাতে এসব সামলাব?’ এরপরই বক্তব্য থামিয়ে বসে পড়েন তিনি।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here