kolkata bengali news

ডেস্ক: ১৭তম লোকসভা ভোটের দামামা বাজতেই তৃণমূল-কংগ্রেসের প্রার্থীদের হয়ে প্রচারে নেমে পড়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এবারের প্রচারের হাতিয়ার- রাজ্যজুড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের করা নানা উন্নয়নমূলক কাজ। পাশাপাশি দেশজুড়ে চলা বেকারত্ব, নোটবন্দি, কৃষক আত্মহত্যা, দলিত হত্যা, সংখ্যালঘুদের হত্যা ও জনধন প্রকল্পের জন্য মানুষের ক্ষতি হয়েছে দাবি তুলে বিভিন্ন জনসভাতে মোদী-শাহ জুটিকে তুলোধনা করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

এদিন বর্ধমান-পূর্বের জামাল্পুরে তৃণমূল প্রার্থী সুনীল কুমার মন্ডলের সমর্থনে প্রচারে গিয়ে আবারও রণংদেহি মূর্তি ধারণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের সভাতে তিনি বর্ধমান জেলার নানা উন্নয়নমূলক কাজ নিয়ে কথা বলেন। মেমারি-ভাতার এলাকায় মাল্টি-সুপারস্পেশালিটি হাসপাতাল, বিভিন্ন স্টেডিয়াম, রাস্তা, পলিটকেনিক কলেজ, সরকারি কলেজ ইত্যাদি বিষয় নিয়ে নানা পরিসংখ্যান দেন তিনি। পাশাপাশি আগামীদিনে বর্ধমান জেলার জন্য একাধিক প্রকল্পের কথাও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানান, ”বর্ধমান কৃষিনির্ভর জেলা। তাই এখানে চাষের জমির যাতে কোনও ক্ষতি না হয়, হাওড়া-হুগলি ও বর্ধমানের জন্য ২৭০০ কোটি টাকার সেচপ্রকল্প ও বন্যা রোধের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।” উত্তরবঙ্গের সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের যোগাযোগ বাড়ানোর জন্য একটি রাজ্যসড়কের প্রকল্পের কথাও জানান মুখ্যমন্ত্রী। এরই সঙ্গে বর্ধমানের কালনা থেকে শান্তিপুরের মাঝে একটি ব্রীজের কথাও ঘোষণা করেন তিনি। এছাড়াও রাজ্যজুড়ে কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, সবুজসাথী প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃতদের উপর দেওয়া নানা তথ্য তুলে ধরেন তিনি। তারপরেই সরাসরি বিজেপিকে টার্গেট করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

রাজ্যে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বারবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি টার্গেট করেছেন। তাঁদের দাবি, ‘মমতাদিদি’ নাকি কোনও কাজ করেননি। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে রাজ্য কাজের খতিয়ান দিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো জানিয়েছেন, ”পাঁচবছরে আপনারা কী কাজ করেছেন, তার কৈফিয়ৎ দিয়েছেন? বলেছিলেন তো ভোটে জিতলে সবার পকেটে দশ কোটি করে দিয়ে দেবেন। দিয়েছেন?” পাশাপাশি সিপিএম ও কংগ্রেসকে এক আসনে বসিয়ে তুলোধনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ”অত্যাচারী যত সিপিএমগুলো এখন বিজেপির ওস্তাদ হয়েছে। আরএসএসের লোকেরা টাকা ছড়াচ্ছে। বলছে, টাকা নিন ভোটদিন। জানেন তো শূন্য কলসি বাজে বেশি।”

গোটা দেশে বিজেপির হারবে এই কথাও এদিনের সভা থেকে আবারও একবার স্মরণ করিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও এনআরসি ও নাগরীকপঞ্জিক নিয়েও বিজেপিকে তুলোধনা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here