aa

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ২৩ মে আসতে আর একমাসও বাকি নেই। ওইদিন গোটা ভারতজুড়ে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা হবে। তাই যত সময় এগিয়ে আসছে ততই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মোদী বিরোধী হুঙ্কার তীব্র হচ্ছে। গতকাল আসানসোল লোকসভার বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে সেই এলাকার বিদায়ী সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়ের আচরণ নিয়ে নানা কথা বলেন তৃণমূল নেত্রী। পাশাপাশি কিছুদিন আগেই দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর অরাজনৈতিক সাক্ষাৎকারের প্রসঙ্গ নিয়েও তুলোধনা করতে ছাড়েননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে প্রত্যেকবছর মিষ্টি ও কুর্তা পাঠান। সেই কথার জবাবে নরেন্দ্র মোদীকে একহাত নেন মমতা।

আজ হুগলি জেলার পান্ডুয়াতে তৃণমূল প্রার্থী ডাঃ রত্না দে নাগের হয়ে জনসভাতে গিয়ে বিজেপি বিরোধী ঝড় তুলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের সভা থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো হুগলি জেলার উন্নয়নের খতিয়ান দিয়ে নির্বাচনি প্রচারে হুঙ্কার দেন মমতা। তিনি জানান, ”এই নির্বাচন দিল্লির সরকার বদলানোর নির্বাচন। মানুষ ব্যাঙ্কের টাকা পাচ্ছে না। রান্নার গ্যাসের দাম ছিল ৪০০ টাকা এখন হয়ে গিয়েছে ৮০০ টাকা। আর সবচেয়ে বড় কথা বিজেপি হল দেশবিরোধী দল, যদি নিজেরা ভালো থাকতে চান তাহলে তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিন।”

 

এই সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আবারও সিপিএমের ৩৪ বছরের সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন। তিনি বলেন, ”সিপিএম সরকার যখন ক্ষমতায় ছিল তখন আমাদের ৩৪ হাজার ছেলে মেয়ে মারা গিয়েছে। আমাদের সরকার আসার পর কাউকে জেলে পাঠানো হয়নি। সবাই মজাতে আছে বিজেপি করছে। সিপিএম এখন নরেন্দ্র মোদীর দয়াতে বেঁচে আছে।” পাশাপাশি এদিনের সভা থেকে বিজেপিকে ফের একবার ধর্মের নামে বিভেদ করার জন্য কড়া ভাষায় সমালোচনা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তিনি আরও বলেন, ”বিজেপি হিন্দুদের দল নয়, ওরা হিন্দু ধর্মকে বদনাম করে, আমাদের দেবতার অসম্মান করে, অপমান করে আর রাস্তায় নিয়ে গিয়ে দেবতাদের বিক্রি করে। আমরা করি না। হিন্দুরা দাঙ্গা করে না, মুসলমানরা দাঙ্গা করে না, শিখরা দাঙ্গা করে না, তফশিলিরা দাঙ্গা করে না। দাঙ্গা করে শুধু নরেন্দ্র মোদীর মতো কিছু বিজেপির নেতারা।” পাশাপাশি এদিনের সভা থেকে আগামী রাজ্যে ৪২-৪২ আসনের জন্য ডাক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here