kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধিন, বাঁকুড়া: বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে এল। দলের প্রাক্তন কর্মীদের হাতে আক্রান্ত হলেন দলের মণ্ডল সভাপতি। এই ঘটনায় তার দুটি পা ও একটি হাত ভেঙে গিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার পাত্রসায়রে। বিজেপি সূত্রে খবর, পাত্রসায়র মণ্ডল-১ সভাপতি দেবানন্দ সরকার গতকাল রাতে পাত্রসায়ের বামিরা থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। সেই সময় বামিরা তেমাথার মোড়ের কাছে এলাকায় বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত কয়েকজন দুষ্কৃতী দেবানন্দ সরকারের পথ আটকায়। লাঠি, রড দিয়ে মাটিতে ফেলে ব্যাপক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তার দু’টি পা ও একটি হাত ভেঙে গিয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পাত্রসায়র থানার পুলিশ। পুলিশই গুরুতর আহত অবস্থায় বিজেপি মণ্ডল সভাপতিকে পাত্রসায়র ব্লক হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ার বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে সারা রাজ্যের সঙ্গে এই জেলাতেও বিপুল সাফল্য পায় বিজেপি। তারপর দলের মণ্ডল সভাপতি নির্বাচন ঘিরে প্রথম প্রায় জেলা জুড়ে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। দলের শীর্ষ নেতৃত্বের চাপে বেশ কিছু দিন এই ঘটনা বন্ধ ছিল। এবার ফের তা শুরু হওয়ায় বিজেপি’র অন্দরেই জোরদার আলোচনা শুরু হয়েছে।

যদিও এই ঘটনাকে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বলে মানতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব। পাত্রসায়ের মণ্ডল নেতৃত্বের দাবি, মণ্ডল-১ সভাপতি দেবানন্দ সরকারকে যারা মারধর করেছে তাদের অনেক আগেই তোলাবাজি ও দলবিরোধী কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে বিজেপি দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারাই সেই বহিষ্কারের প্রতিশোধ নিতেই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে বলেই অভিযোগ। দলের মণ্ডল সভাপতিকে ব্যাপক মারধরের পাশাপাশি গলায় থাকা রুপোর চেন ও বেশ কিছু টাকা পয়সা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করে নেতৃত্ব। এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে ওই সব প্রাক্তন কর্মীদের নামে পাত্রসায়ের থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here