ডেস্ক: #মিটু! একটা শব্দই কাফি ছিল গোটা বলিউডকে তোলপাড় করে দিতে। সুদূর হলিউড থেকে বলিউডে ঘাঁটি গেঁড়ে #মিটু বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে এক একজন তাবড় ব্যক্তিত্বদের জীবনে। নানা পাটেকর, বিকাশ বহেল, রজত কাপুর, আলোক নাথ, সাজিদ খান, কৈলাশ কের, কে নেই তালিকায়। শুধু বলিউড বললে চরম ভুলই হবে। কারণ #মিটু’র প্রবেশ ঘটেছে রাজনৈতিক দুনিয়াতে আবার ক্রীড়া জগতেও। প্রাক্তন সাংবাদিক ও প্রবীন বিজেপি নেতা এম জে আকবর ও লাসিত মালিঙ্গা এই বিতর্কে নবতম সংযোজন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নাম আসার পর থেকে আরও সরগরম হয়েছে দেশবাসী। বিজেপির কোনও মন্ত্রী বা নেতা এই বিষয়ে মুখ না খুললেও প্রথম থেকেই অভিযোগকারী মহিলাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী মানেকা গান্ধী। এ বার বিচার পেতে নির্যাতিতাদের সব রকম সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কমিটিও গঠন করে ফেললেন তিনি।

এই বিষয় নিয়ে মানেকা গান্ধী জানান, #মিটু অভিযোগগুলি বিচারের জন্য চার অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির একটি কমিটি গঠন করা হবে। ওই কমিটিই অভিযোগগুলির গণশুনানি করবে। তার পর সেখান থেকে কোথায় কী ভাবে অভিযোগ জানানো যাবে, তার পরামর্শ দেবে। পাশাপাশি সুবিচার পেতে নির্যাতিতাকে সব রকম আইনি সাহায্য ও সহযোগিতা করবেন কমিটির সদস্যেরা। তিনি আরও জানান, প্রতিটি অভিযোগের পিছনেই একটি মানসিক যন্ত্রণা রয়েছে। কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার প্রতিটি অভিযোগই অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যক্ষভাবে #মিটু নিয়ে কোনও পদক্ষেপ না নিলেও কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী মানেকা গান্ধীর এই পদক্ষেপ ব্যাপকভাবে সাহায্য করবে বলে আশাবাদী নির্যাতিতারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here