মহানগর ওয়েবডেস্ক: গতবছর পশ্চিমবঙ্গ নাট্য অ্যাকাডেমির সদস্যপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন প্রবীণ নাটককার বিভাস চক্রবর্তী। এবার নাট্য অ্যাকাডেমির সভাপতির পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন বিশিষ্ট অভিনেতা ও নাটককার মনোজ মিত্র। কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছেন, ‘শরীর ভাল নেই। তাই এই সিদ্ধান্ত।’ সেকথা জানিয়েই তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তরের সচিব বিবেক কুমারকে চিঠি দিয়ে আজ তিনি ইস্তফা দিয়েছেন বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।

প্রবীণ নাট্যব্যক্তিত্ব মনোজ মিত্র তাঁর সরে দাঁড়ানোর কারণ হিসেবে ‘শারীরিক অসুস্থতা’র কথা জানালেও কমিটি থেকে ‘যোগ্য নাটকের মানুষদের অপসারণ’ মেনে নিতে না পারায় তিনি ইস্তফা দিয়েছেন বলে মনে করছেন বাংলার নাট্যমহলের অনেকে। এ প্রসঙ্গে প্রবীণ নাট্যব্যক্তিত্ব মনোজ মিত্র মহানগর-কে বলেন, ‘একটাই কথা। একবছরের ওপর আমি যাইনি। গত পুজো থেকে যাইনি। এখন প্রায় শয্যাশায়ী। এক-দু’মাসের জন্য হলেও কোনও ব্যাপার ছিল না। কিন্তু অনুপস্থিতি দীর্ঘকালীন হয়ে যাচ্ছে। আর কি বসে থাকা যায়? আমি পা ভেঙে বসে থাকব আর অন্যরা অপেক্ষায় থাকবেন ওখানে, এটা ঠিক শোভন নয়। আর এই বয়সে কবে ভাল হব, এটা বলাও বেশ মুশকিল। আশা করি সবাই বাস্তবটা বুঝতে পারবেন।’

প্রসঙ্গত, সপ্তাহ-দুয়েক আগেই নাট্য অ্যাকাডেমির নতুন কমিটি গঠিত হয়। মনোজ মিত্রকে সভাপতি করা হলেও অরুণ মুখোপাধ্যায়, হরিমাধব মুখোপাধ্যায়, উষা গঙ্গোপাধ্যায় সহ একাধিক প্রবীণ নাট্যব্যক্তিত্ব ওই কমিটি থেকে বাদ পড়েন। উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যসংখ্যা ২৫ জন থেকে বাড়িয়ে ৪৪ জনের নতুন কমিটি গঠন করা হলেও তাঁদের ঠাঁই হয়নি। অথচ রাজনৈতিক শিবিরে নাম লেখানো এবং অপেক্ষাকৃত নবীন নাট্যব্যক্তিত্ব ব্র‌াত্য বসু, অর্পিতা ঘোষ প্রমুখ সেই কমিটিতে রয়েছেন। সেই কারণে মনোক্ষুণ্ন হয়ে এই ইস্তফা কি না, তা নিয়ে চলছে জোর জল্পনা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here