kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা: করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের প্রতিটি হাসপাতালে দিনরাত পরিষেবা দিচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা৷ ব্যতিক্রম নেই মালদা মেডিক্যালও৷ কিন্তু নিজেদের সুরক্ষার অভাব বোধ করছেন মালদা মেডিক্যালের ইনটার্ন ডাক্তাররা৷ নিজেদের সুরক্ষার দাবিতে অবশেষে কর্মবিরতিতে শামিল হলেন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ইনটার্নরা৷ শনিবার সন্ধে থেকে মেডিক্যাল কলেজের প্রশাসনিক ভবনের সামনে জমায়েত করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তারা। তাদের সাফ দাবি, মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ তাদের মাস্ক ও স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করলেই তাঁরা কাজে যোগ দেবেন৷

করোনা প্রতিরোধ করতে রাজ্যের প্রতিটি হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইন ওয়ার্ড ও ফ্লু ওয়ার্ড তৈরি করা হয়েছে৷ দিনরাত পরিষেবা দিচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ কিন্তু নিজেদের সুরক্ষার অভাব বোধ করছেন মালদা মেডিক্যালের চিকিৎসকরা৷ বাধ্য হয়ে কর্মবিবরতিতে শামিল হলেন তারা।

কর্মবিরতিতে শামিল হওয়া এক ইনটার্ন জানান, এতদিন ধরে আমরা মাস্ক ও স্যানিটাইজার ছাড়াই মালদা মেডিক্যালের ইনটার্ন ডাক্তাররা পরিষেবা দিচ্ছি। কর্তৃপক্ষের কাছে একাধিকবার মাস্ক ও স্যানিটাইজারের দাবি জানানো হয়েছে৷ কিন্তু কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন ধরে ঘোরাচ্ছে৷ এখন করোনা তৃতীয় ধাপের দিতে এগোচ্ছে৷ তা নিয়ে তাঁরা চিন্তিত৷ এই পরিস্থিতিতে তাঁদের মাস্ক ও স্যানিটাইজার ছাড়া কাজ করা সম্ভব নয়৷ রোগীদের সঙ্গে আমাদের ক্লোজ কনট্যাক্টে কাজ করতে হচ্ছে৷ কর্তৃপক্ষ আমাদের বলছে, তারা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে মাস্কের জন্য আবেদন করেছে৷ কিন্তু কবে মাস্ক পাওয়া যাবে তার জবাব তাদের কাছে নেই৷

মালদা মেডিক্যালের সহকারী অধ্যক্ষ ও হাসপাতাল সুপার অমিত দাঁ ফোনে জানান, ইনটার্নরাই হাসপাতালের মূল স্বাস্থ্য পরিষেবা দিয়ে থাকেন৷ কিন্তু তাঁরা আতঙ্কে থাকলে স্বাভাবিক ভাবেই রোগীরা যথাযথ পরিষেবা পাবেন না৷ তাই ইনটার্নদের সুরক্ষার বিষয়টি কর্তৃপক্ষের জরুরি ভিত্তিতে দেখা প্রয়োজন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here