news national

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ২৪ মার্চ থেকে ভারতজুড়ে শুরু হয়েছিল লকডাউন প্রক্রিয়া। আর তার ঠিক ১৪ দিনের মাথায় দেখতে পাওয়া গেল আশার আলো। এদিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে করোনা আক্রান্ত ও মৃতদের যে পরিসংখ্যান প্রকাশ্যে আনা হয়েছে তা থেকে ইতিবাচক সংকেত পাওয়া যাচ্ছে। এক সাংবাদিক বৈঠক করে এদিন কেন্দ্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫৪। একই সময়ে আটজনের মৃত্যুর খবর মিলেছে করোনা আক্রান্ত হয়ে।

অথচ গতকালের বুলেটিনে যে তথ্য উঠে এসেছিল তা কিছুটা ভয় পাওয়ার মতোই ছিল। গতকাল জানানো হয়, শেষ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৭০০। একই সঙ্গে মৃত্যুর সংখ্যাটা ছিল ৩০। ফলে এদিন তা সামান্য বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনাই ছিল প্রবল। তবে এদিনের পরিসংখ্যান কার্যত একটা আশা দেখিয়ে দিল। ১৩০ কোটি জনসাধারণের দেশ এই মহামারীকে যে আটকে দিতে সক্ষম, তার ইঙ্গিত মিলল লকডাউনের ১৪ তম দিনেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কারোর শরীরে করোনা সংক্রমণ হলে তার উপসর্গ স্পষ্ট হতে সর্বাধিক ১৪ দিন সময় লাগে। ফলে লকডাউনের কী উপকারিতা হল তা প্রাথমিকভাবে বলতে চাননি কেউ। তবে এদিন যে পরিসংখ্যান উঠে এসেছে, তা যদি বজায় থাকে তবে আগামী সময়ে করোনার বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে ভারত অবশ্যই জয়লাভ করতে পারবে। এতে কোনও সন্দেহ নেই।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, বর্তমানে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪,৪২১। এদের মধ্যে ১১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে এই মারণ ভাইরাসের ছোবলেই। অন্যদিকে ৩২৬ জন সম্পূর্ণরূপে সুস্থ হয়ে উঠেছে। আগামী ১৫ এপ্রিল লকডাউন শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তবে আগামী কয়েকদিন যদি এই নিম্নমুখী ধরা অব্যাহত থাকে তবে খুব বেশি মুশকিল ভারতবাসীকে পোহাতে হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। এই ভাইরাসকে নির্মূল না করা গেলেও এর সংক্রমণের চেন ভেঙে দেওয়াটাই এখন সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here