মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজস্থানে বহুজন সমাজবাদী পার্টির যে ছয়জন বিধায়ক সদলবলে কংগ্রেসে চলে গিয়েছিলেন তারা আগামীকাল বিধানসভার আস্থা ভোটে ভোট দিতে পারবেন। অর্থাৎ এই ছয়জনকে দলত্যাগ বিরোধী আইনের আওতায় এনে কংগ্রেসকে বিপাকে ফেলার যে চেষ্টা বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতী করেছিলেন সেটি আপতত বিফলে গেল। বিএসপি’র পক্ষ থেকে করা মামলাটি সুপ্রিম কোর্ট খারিজ করে দিয়ে সিদ্ধান্তটি রাজস্থান হাইকোর্টের ওপর ছেড়ে দেন।

দলত্যাগী বিধায়কদের বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন শুনানি চলাকালীন শীর্ষ আদালতের তিন বিচারপতির বেঞ্চ তাদের রায়ে জানান, ‘’যেহেতু বিষয়টি হাইকোর্টে বিচারাধীন রয়েছে সেহেতু আমরা এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করব না।‘’ আগামী সোমবার হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত জানার পর মামলাটি সুপ্রিম কোর্ট গ্রহণ করবে বলে জানানো হয় শীর্ষ আদালতের তরফে।

বহুজন সমাজবাদী পার্টির আইনজীবী দীনেশ গর্গ জানান, তারা আশা করেছিলেন ১১ অগস্ট একটি অন্তর্বর্তীকালীন রায় বেরবে কিন্তু হাইকোর্টের এক বিচারপতির বেঞ্চ সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের কথা না শুনে কোনও রায় দিতে অস্বীকার করেন।  ফলে কোনও অন্তর্বর্তীকালীন রায় না থাকায় ওই ছয় বিধায়কের আগামীকাল বিধানসভায় ভোটদানের কোনও বাধা রইল না। যদিও আগামীকালও মামলাটির শুনানি চলবে।

গত একমাস ধরে সরকার ধরে রাখা নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় ভোগা মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট যদি আগামীকালের আস্থা ভোটে নিজের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারেন তাহলে আগামী ৬ মাসের মধ্যে আইন অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে আর কোনও অনাস্থা প্রস্তাব আনা যাবে না। শচিন পাইলট সহ বিক্ষুব্ধ বিধায়করা কংগ্রেসে ফিরে আসায় অশোক গেহলটের আস্থা ভোটে জেতা আগেই নিশ্চিত হয়ে গেলেও কংগ্রেসে আসা বিএসপি’র ছয় বিধায়ককে নিয়ে তার কিছুটা দুশ্চিন্তা রয়েই গিয়েছিল। আজ শীর্ষ আদালতের রায়ে শেষ হাসিটা যে আগামীকাল অশোক গেহলটই হাসতে চলেছেন সেটা প্রায় নিশ্চিত করেই বলা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here