maharashtra corona

মহানগর ডেস্ক:   মুম্বইয়ে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এই পরিস্থিতিতে সম্পূর্ণ লকডাউনের প্রয়োজন আছে। না হলে শহরে করোনা পরিস্থিতি কোনওভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে না বলে মন্তব্য করলেন বৃহন্মুব্বইয়ের মেয়র। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতের মধ্যে সব থেকে খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মুম্বই।

বৃহন্মুব্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের মেয়র কিশোরী পাণ্ডেকর জানান, মুম্বইয়ে বেশিরভাগ মানুষ করোনা বিধি মেনে চলছেন। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, মুম্বইয়ের ৯৫ শতাংশ মানুষ করোনা বিধি মেনে চলছেন। কিন্তু শহরের পাঁচ শতাংশ মানুষ করোনা বিধি মেনে চলছেন না। তাঁদের জন্যই শহরের এই অবস্থা। শহরের করোনা পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হচ্ছে। তিনি বলেন, আমার মনে হয়, বর্তমান পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে মুম্বই শহরে কিছুদিনের জন্য সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করা প্রয়োজন। হরিদ্বারে কুম্ভমেলায় ব্যাপক জনসমাগম নিয়ে কটাক্ষ করেন কিশোরী পাণ্ডেকর। তিনি বলেন, কুম্ভমেলায় প্রসাদ হিসেবে করোনা বিতরণ করা হচ্ছে। কুম্ভমেলায় যাওয়া পুণ্যার্থীদের যত দ্রুত সম্ভব কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো উচিত।

গত ২৪ ঘণ্টায় মহারারাষ্ট্রে রেকর্ড পরিমান মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় মুম্বইয়ে ৬৩,৭২৯ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ৩৯৮ জন করোনায় মারা গিয়েছে। যার জেরে রাজ্যে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল। মহারাষ্ট্রের রাজধানী শহর মুম্বইয়েও করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। গত ২৪ ঘণ্টায় ৮,৮০৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মুম্বইয়ে করোনায় মোট ৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি সারা দেশের করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহভাবে আছড়ে পড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here