ডেস্ক: কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সম্পর্কের টানাপোড়েন এখন বহুচর্চিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ একান্ত পারিবারিক এবং ব্যক্তিগত বিষয় হলেও, এখন তা পাবলিক ডোমেনে ঘোরাফেরা করছে৷ কারণটা অবশ্যই শোভন চট্টোপাধ্যায় শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষস্থানীয় নেতা তথা কলকাতার মেয়র৷ পাশাপাশি, তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ও বঙ্গ রাজনীতিতে একটি পরিচিত মুখ৷ শাসক দলের ঘনিষ্ঠ তিনি৷ রত্নদেবীর পরিবারও শাসক দলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত৷ তাই তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদর মামলাও এখন বাজারে‘হট কেক’৷ মঙ্গলবার আলিপুর আদালতে ছিল তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদে খোরপোশ মামলা৷ সকাল সকাল আদালতে হাজিরা দিলেন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়।

এত পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল, কিন্তু আদালত কক্ষে শোভনবাবুর সঙ্গী ছিলেন বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বৈশাখীদেবী এদিন আদালত চত্বরে শোভনবাবুর সর্বক্ষণের সঙ্গী ছিলেন৷ যা নিয়ে কিন্তু বিভিন্ন মহলে নতুন করে গুঞ্জন শুরু হয়েছে৷ অনেকেই মনে করেন, স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের অন্যতম কারণ এই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভনবাবুর ঘনিষ্ঠতা৷ আর এদিন আদালত চত্বরে মেয়রের ছায়াসঙ্গী হয়ে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দেখা দেওয়াতে সেই তত্ত্ব আরও জোরাল হল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে প্রায় একঘন্টা আদালত কক্ষে ছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখীদেবী। এই খরপোশ মামলায় মক্কেলের হয়ে দাবি পেশ করেন রত্না চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী। মাসে রত্নাদেবীকে দেড় লক্ষ টাকা করে খোরপোশ দেওয়ার পক্ষে জোরাল সওয়াল করেন তাঁর আইনজীবী। সঙ্গে মেয়ের পড়াশোনার যাবতীয় খরচও দিতে হবে। এদিকে, রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে করা অভিযোগের প্রমাণ আদালতে জমা দেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। বিবাহ

উল্লেখ্য, এদিন বিবাহ বিচ্ছেদ ও খরপোশের মামলার থেকেও সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে মেয়রের পাশে তাঁর বান্ধবী বৈশাখীর থাকার বিষয়টি৷ বৈশাখা বন্দ্যোপাধ্যায় পেশায় একজন নামী অধ্যাপিকা৷ তবে মেয়র ঘনিষ্ঠ হওয়ায় রাজ্য সরকারের বেশ কয়েকটি দফতরের দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি৷ এখন অবশ্য সবকটি দফতর থেকেই হয় বৈশাখীদেবীকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে, অথবা তিনি পদত্যাগ করেছেন৷ খুব স্বাভাবিকভাবেই মামলা চলাকালীন মেয়রের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন অধ্যাপিকা বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন আদালত কক্ষে হাজির থেকে পাশে দাঁড়ানোর বার্তা আরও জোরাল করলেন তিনি৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here