news bengali kolkata

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা: করোনার চিকিৎসা প্রস্তুত মেডিক্যাল কলেজ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল। আপাতত ৩০০ শয্যা নিয়ে শুরু হচ্ছে চিকিৎসা। ধীরে ধীরে শয্যা সংখ্যা বাড়িয়ে ৩ হাজার করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

বুধবার থেকে ভেন্টিলেটার ও ক্রিটিক্যাল ইউনিট চালু হওয়ার কথাও রয়েছে। শনিবার দফায় দফায় চলেছে করোনা চিকিৎসা প্রশিক্ষণ। চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নিয়ে চলে এই প্রশিক্ষণ পর্ব। এর সঙ্গেই করা হয় দফায় দফায় বৈঠক।

শনিবার থেকেই চালু হওয়ার কথা ছিল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের আইসোলেশন ওয়ার্ড। তবে কিছু সমস্যার জন্য তা স্থগিত হয়ে যায়। যদিও হাসপাতালের শীর্ষস্থানীয় এক আধিকারিক দাবি করে বলেন, হাসপাতাল সবদিক থেকেই প্রস্তুত চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার জন্য। শুধু রোগী আসার অপেক্ষা। অন্যদিকে এদিন জুনিয়র ডাক্তার, চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদের নিয়ে প্রশাসনিক ভবনে এক বৈঠকও হয়। করোনা আক্রান্ত রোগী এলে কী ভাবে তাঁদের চিকিৎসা করা হবে, কী ভাবে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের নিরাপত্তা বজায় রাখবেন, কী ভাবে আক্রান্তের চিকিৎসা করবেন সেইসব বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

ইতিমধ্যেই হাসপাতালের অন্যান্য বিভাগ খালি করে দেওয়া হয়েছে। রোগীদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে অন্য হাসপাতালে। এদিকে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। এই অবস্থায় রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, একটি হাসপাতালকে সম্পূর্ণরূপে করোনা চিকিৎসার জন্য বরাদ্দ করা হবে। সেইমতো কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের সুপার স্পেশালিটি বিভাগকে তৈরি করা হয়।

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ কতটা প্রস্তুত হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে হাজির হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রীও। করোনা মোকাবিলা বিভাগের সামনের ৫ নম্বর গেটকে ‘করোনা গেট’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। কোভিড ১৯ আক্রান্ত রোগীদের এই গেট দিয়েই হাসপাতালে নিয়ে আসা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here