mehobboba kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গৃহবন্দি মেহবুবা মুফতির টুইটার অ্যাকাউন্ট এখন তাঁর মেয়ে ইলতিজা দেখাশোনা করছেন। সে কথা তিনি নিজেই জানিয়েছেন দিন দুয়েক আগে। ইলতিজা সেই টুইটার থেকেই কন্যা দিবসে (‘ডটার্স ডে’) বার্তা লিখে ছুঁতে চেয়েছেন মাকে।মেহবুবার অ্যাকাউন্টে ইলতিজার লেখা, ‘আমি তোমার সবচেয়ে প্রিয় মেয়ে, এটা বলার জন্য তোমায় শুধু জ্বালাতন করি সাধারণ সময়ে। কিন্তু এখন স্বাভাবিক সময় নয়। ৪৮ দিন পেরিয়ে গেল, তোমাকে আমাদের থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তোমাকে স্বপ্ন দেখি। তার পরে হৃদয়ভরা যন্ত্রণা নিয়ে ঘুম ভাঙে, বড় কঠিন সেই সব দিন। লাভ ইউ মাম।’ হ্যাশট্যাগে ডটার্সডে লিখে ইলতিজা পোস্টের সঙ্গে জুড়েছেন মেহবুবার সঙ্গে তাঁর শৈশবের একটি ছবিও। উল্লেখ্য সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশে কিছুদিন আগে চেন্নাই থেকে মায়ের সঙ্গে দেখা করে এসেছেন ইলতিজা৷ তবে তিনি বলছেন কাশ্মীরে একেবারেই অচ্ছে দিন নেই৷ সেই সঙ্গে তিনি ভারত সরকারের কাছে জানতে চেয়েছেন, কোন অপরাধে ৪৮ দিন পরেও তাঁর মাকে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে না৷ স্বাভাবিকভাবে নিরুত্তর অমিতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷

রবিবার রাতে হাউস্টনের সভায় নরেন্দ্র মোদী যখন ৫০হাজারি জনতার সামনে ৩৭০ ধারা লোপ নিয়ে আবেগঘন বাষণ দিচ্ছেন, ঠিক তখনই মেহবুবা মুফতির মেয়ে ইলতিয়াজার কন্ঠে বিষন্নতার সুর৷ ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের পক্ষে যুক্তি দেওয়ার পরে মেহবুবার অ্যাকাউন্টে দেখা যায় নতুন ট্যুইট— ‘এটা হাস্যকর যে, জম্মু-কাশ্মীরের ভালর জন্য যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হচ্ছে, সেটা জম্মু-কাশ্মীরেই প্রশংসা পাচ্ছে না। এখানকার মানুষের কণ্ঠরোধ হচ্ছে। আর অন্যত্র চলছে গণ-হিস্টিরিয়া।’মেহবুবার টুইটার অ্যাকাউন্ট টানা ৪৬ দিন নিষ্ক্রিয় থাকার পরে গত শুক্রবার সেখান থেকে প্রথম পোস্ট করেন ইলতিজা। লেখেন, ‘এই অ্যাকাউন্ট থেকে ওঁর অনুমতি সাপেক্ষে আমি, ওঁর মেয়ে ইলতিজা এখন পোস্ট করছি।’এ মাসের গোড়ার দিকে সুপ্রিম কোর্ট থেকে অনুমতি পাওয়ার পরে ইলতিজা শ্রীনগরে তাঁর মায়ের সঙ্গে দেখা করতে পেরেছিলেন। ওই টুইটটির পরে দ্বিতীয় টুইটে সে কথা জানিয়েছেন ইলতিজা। সঙ্গে একটি চিঠি জুড়ে ২০ সেপ্টেম্বেরর সেই টুইটে তিনি লেখেন, ‘মায়ের জন্য কিছু তথ্য জানতে চেয়ে আমি ইলতিজা, কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্রসচিব এবং জম্মু ও কাশ্মীরের স্বরাষ্ট্রসচিবকে ইমেল করেছি ১৮ সেপ্টেম্বর। এখনও অপেক্ষা করছি উত্তরের জন্য।’ ওই চিঠিতে ইলতিজা জানিয়েছেন, পরিবারের খুব ঘনিষ্ঠ লোকজন ছাড়া তাঁর মাকে কারও সঙ্গেই দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না। খবরের কাগজ পাচ্ছেন না, দলের কারও কাছ থেকেও জানতে পারছেন না রাজনৈতিক পরিস্থিতি।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনও মেয়ের সঙ্গে পুরনো একটি ছবি পোস্ট করেছেন। লিখেছেন, ‘মেয়েদের নিয়ে কত কথা যে বলার আছে। একটা পুরনো ছবি দিলাম। আমার ফ্রেন্ড, ফিলোজফার অ্যান্ড গাইড!’ তবে ইলতিজা মাকে না পেয়ে যে যন্ত্রণার কথা লিখেছেন, মা হিসেবে নির্মলা সে পোস্ট দেখেছেন কি? তা অবশ্য জানা যায়নি। কন্যা দিবসে মেয়ের সঙ্গে স্নেহের মুহূর্ত ভাগ করে নিয়েছেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরাও। তুষারপাতের মধ্যে ষোলো বছরের মেয়ে মিরায়ার একটি ছবি দিয়ে প্রিয়ঙ্কা টুইটারে লিখেছেন, ‘কে জানত, ডটার্স ডে বলেও কিছু হয়! আমার তো মনে হয় রোজই তা-ই।’ এমনিতে মেয়ে মিরায়া আর ছেলে রেহানকে (১৮) নিয়ে প্রকাশ্যে তেমন আসেন না প্রিয়ঙ্কা। গত এপ্রিলে রাহুল গাঁধী যখন আমেঠী থেকে মনোনয়ন পেশ করতে যান, তখন ভাগ্নে-ভাগ্নির সঙ্গে নিজস্বী তুলছেন, এমন ছবি প্রকাশ্যে এসেছিল। কন্যা দিবসে টুইট করেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত, কংগ্রেস নেতা তথা পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিংহ-সহ আরও অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। আর কেন্দ্রীয় সরকার বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও বলছে, তবে করছে না৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here