মহানগর ওয়েবডেস্ক: চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে রোহিত শর্মার ‘ভুঁড়ি’ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছিল। অনেকেই তাঁর ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। কিন্তু কেকেআরের বিরুদ্ধে ম্যাচে রোহিত দেখিয়ে দিলেন কোহলির মতো চূড়ান্ত ফিট না হলেও তিনি কতটা বিধ্বংসী হতে পারেন। কেকেআর ও মুম্বইয়ের মধ্যে সুস্পষ্ট ফারাক তিনিই গড়ে দিলেন। মুম্বই ম্যাচটি জিতে নিল ৪৯ রানে।

টসে জিতে প্রথমে বল করতে নেমে শুরুটা কিন্তু ভালোই করেছিল কেকেআর। মাত্র ৮ রানের মধ্যে কুইন্টন ডি’কককে ড্রেসিংরুমে ফেরান তরুণ শিবম মাভি। কিন্তু তারপরেই জ্বলে ওঠেন রোহিত শর্মা ও প্রাক্তন নাইট সূর্যকুমার যাদব। দুজনে দ্বিতীয় উইকেটে ৯০ রান যোগ করেন। শেষমেষ ৪৭ রান করে রান আউট হন যাদব। তবে অন্য প্রান্তে কিন্তু ঝোড়ো ব্যাটিং চালিয়ে যান হিটম্যান। কেকেআর বোলারদের নিয়ে স্রেফ ছেলেখেলা করেন তিনি। শেষমেষ ৫৪ বলে ৮০ রান করে মাভির শিকার হন তিনি। শেষমেষ ২০ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৯৫ রান করে মুম্বই। কলকাতার হয়ে শিবম মাভি দুই উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে একটিও রান করতে পারেননি কেকেআর ওপেনার শুভমান গিল। যদিও বেশিক্ষন ক্রিজে থাকতে পারেননি তিনি। মাত্র ৭ রান করে বোল্টের শিকার হন গিল। নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি নারিনও (৯)। তবে এরপর দীনেশ কার্তিক ও নীতিশ রানা ধীরে ধীরে পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। কিন্তু রাহুল চাহারের বলে ৩০ রান করে এলবিডব্লিউ হয়ে যান দীনেশ। ফিরে যান রানাও (২৪)। আর এই সময়ই ক্রিজে আসেন নাইট বাহিনীর শেষ ভরসা আন্দ্রে রাসেল। কিন্তু এদিন তিনিও ফ্লপ (১১)। এরপর মুম্বইয়ের জয় ছিল সময়ের অপেক্ষা। শেষ দিকে কামিন্স কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন (৩৩)। অবশেষে ২০ ওভারে ১৪৬/৯ রান করে কেকেআর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here