মহানগর ওয়েবডেস্ক: গুলি ও গ্রেনেডে কেঁপে উঠল করাচি। আজ সকালে জঙ্গিরা শহরের স্টক এক্সচেঞ্জে অতর্কিতে হামলা চালায়। মূল দফতরের গেটে গ্রেনেড ছোড়ার পর দুষ্কৃতীরা গুলি ছুড়তে শুরু করে বলে পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে। জঙ্গিদের গ্রেনেড হামলায় দু’জন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। একজন পুলিশ অফিসার ও নিরাপত্তা রক্ষী সহ আহত হয়েছেন কমপক্ষে তিনজন। সংবাদপত্র ‘ডন’ জানিয়েছে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

স্টক এক্সচেঞ্জ বিল্ডিং–এ জঙ্গিদের সঙ্গে নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনীর প্রবল গুলি বিনিময় চলেছে। করাচি পুলিশের শীর্ষ কর্তা গুলাম নবি মেমন সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন চারজন আক্রমণকারীই নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছে। জঙ্গিরা একটি রুপোলি রঙের করোলা গাড়িতে করে এসেছিল বলে তিনি জানান। আক্রমণকারীরা সংখ্যায় কতজন ছিল সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট করে কিছু জানা যায়নি।

স্টক এক্সচেঞ্জ বিল্ডিংটি বিশেষ নিরাপত্তা অঞ্চলে অবস্থিত। ওই একই বিল্ডিং–এ একাধিক বেসরকারি ব্যাঙ্কের দফতর রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সরকারি আধিকারিক সূত্রে জানানো হয়, গ্রেনেড ছোড়া ও গুলি চালানোর ঘটনাটি বিল্ডিঙের প্রধান গেটের সামনে ঘটে। পুলিশ ও রেঞ্জার বাহিনী গোটা অঞ্চলটিকে সিল করে দিয়েছে। আহতদের নিকটবর্তী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিল্ডিংটির মধ্যে যারা ওই হামলার সময় ছিলেন তাদের পেছনের দরজা দিয়ে নিরাপদে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জের ডিরেক্টর আবিদ আলি বলেন, দুষ্কৃতীরা পার্কিং এরিয়া দিয়ে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। সিন্ধ প্রদেশের গভর্নর ইমরান ইসমাইল এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে বলেন এই ঘটনা ”সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের লাগাতার লড়াই”কে কালিমালিপ্ত করার জন্য ঘটানো হয়েছে। দুষ্কৃতীদের জীবিত অবস্থায় ধরার নির্দেশ আইজি ও নিরাপত্তা এজেন্সিকে দেওয়া হয়েছে জানিয়ে গভর্নর বলেন, এই ঘটনার নেপথ্যে যারা রয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here