kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গোমাতার পর এবার দুগ্ধের উপর ও নিজেদের দাবি ফলাও করলেন তথাকথিত দেশের উচ্চবর্ণের ব্রাহ্মণ গোষ্ঠীরা। এমন ঘটনাই দেখা গিয়েছে কেরলে। রাজ্যের একটি দুধ প্রস্তুতকারক সংস্থার প্যাকেটে লেখা রয়েছে ‘গো রক্ষা, দেশ রক্ষা’। মালায়ালাম ভাষায় লেখাটি ছাপা হয়েছে। যদিও প্যাকেটের গায়ে স্পষ্ট করে লেখা রয়েছে ‘ব্রাহমিনস দুধ’।

দুধের প্যাকেটের ছবি ভাইরাল হতেই নেট দুনিয়ায় সমালোচনার ঝড় ওঠে তুঙ্গে। বিরোধী মহলের তরফে দাবি তোলা হয়, এমন পণ্য সমাজে বর্ণ বিদ্বেষের কারণ হয়ে উঠছে। সমালোচকদের মতে, ব্রাহ্মণ নামে যদি দুধ প্রস্তুতকারক কোন সংস্থাই থাকতো তবে প্যাকেটের গায়ে তাদের লোগো থাকতো, কিন্তু সেটা তা নেই।

কেরলে নিবাসী অসীম পিকে নামে এক বাসিন্দা বাজারে এমন দুধের প্যাকেট দেখতে পেয়ে হতবাক। তড়িঘড়ি তিনি সেটা কিনে নিয়ে ছবি তুলে পোস্ট করেন টুইটারে। আর তাঁর টুইটের জেরেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়ে এই ছবি। যার জেরে বিতর্কের ঝড় ওঠে গোটা দেশ জুড়ে। টুইটারে তিনি লেখেন, কেরলে নতুন পণ্য ব্রাহ্মণ দুধ! ফার্ম ফ্রেশ টোনড মিল্ক ব্রাহমিনস প্রোডাক্ট। যার প্যাকেটের গায়ে মালায়ালাম ভাষায় লেখা রয়েছে, গোরক্ষা দেশরক্ষা। তিনি বলেন, দেখে বুঝতে পারছি না ‘হাঁসব না কাঁদব’।

যদিও এই টুইট ঘিরেই দু’ভাগে বিভক্ত হয়েছে নেটদুনিয়া। একক্ষের দাবি সমাজে হিংসা ও বর্ণবিদ্বেষের কারণ হয়ে উঠছে। অপরপক্ষের পাল্টা জবাব, ব্রাহমিনস নামে এই সংস্থা গত ৩০ বছর ধরে ব্যবসা করছে। তারা শুধু দুধই, নয় সঙ্গে অন্যান্য প্রোডাক্টও তৈরি করে। সুতরাং এই নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই। নাছোড়বান্দা সমালোচকদের দাবি, ব্রাহমিনস নামে যদি দুধ প্রস্তুতকারক কোনও সংস্থাই থাকতো তবে প্যাকেটের গায়ে তাদের লগো থাকতো। তা নেই কেন।

সম্প্রতি জ্যোমাটোর বিতর্ক ওঠার সময় কর্তৃপক্ষের তরফে করা একটি টুইট এখনও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে অহিন্দু ডেলিভারি বয়ের হাত থেকে এক ব্যক্তি খাবার নিতে অস্বীকার করে। পাল্টা দিয়ে জ্যোমাটো লেখে, ‘খাবার কোনও ধর্ম হয় না। এটা নিজেই একটা ধর্ম।’ কিন্তু কেরলের এই দুগ্ধ প্রস্তুতকারক সংস্থা সম্ভবত দেখিয়ে দিল, খাবার কেবল ধর্মের ভিত্তিতে নয়। জাতপাতের ভিত্তিতেও ভাগ হয়। প্রস্তুককারক সংস্থার পক্ষ থেকে এই বিষয়টিকে নিয়ে এখনও অবধি যদিও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here