kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: ছেঁড়া কাঁথায় শুয়ে লাখ টাকার স্বপ্ন দেখা উচিত নয়। অত্যন্ত পুরনো প্রবাদটি বহু ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয় ‘অবান্তর’ স্বপ্ন দেখার জন্য। তবে সেই প্রবাদটি যে সব ক্ষেত্রে খাটে না, তার প্রমাণ পাওয়া গেল। ছেঁড়া কাঁথায় শুয়ে লাখ টাকার স্বপ্ন দেখেছিলেন। আর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত করতে কেটেছিলেন একটি লটারি। তবে লাখ টাকা নয়, ওই ব্যক্তির কপালে ছিল কোটি টাকা! রাতারাতি কোটিপতি হয়েছেন ছেঁড়া কাঁথায় শুয়ে লাখ টাকার স্বপ্ন দেখা সেই ব্যক্তি।

দোকানে দোকানে দুধের প্যাকেট বিলি করে দিন গুজরান করেন হাওড়া ডোমজুড়ের উত্তর ঝাঁপরদহ গ্রামের শক্তি দাস। অভাবের সংসারে লকডাউনের সময়ে নেমে এসেছিল তীব্র অনটন। দুধের প্যাকেট সরবরাহ করে মাসে খুব অল্প আয় হতো। অবশেষে সেই শক্তিবাবুই লটারিতে প্রথম পুরস্কার জিতে হয়ে গেলেন কোটিপতি। শনিবার এলাকারই এক লটারির দোকান থেকে রাজ্য সরকারের ডিয়ার লটারির ৫টি টিকিট ৩০টাকা দিয়ে কেটেছিলেন তিনি। রাজ্য লটারির অধীন ওই ডিয়ার লটারির প্রতিটি দাম ছিল ৬টাকা করে। ৫টি টিকিটের একটি সিরিজ কেটেছিলেন তিনি।

ওইদিনই ছিল খেলা। ওইদিন আর কোনও খোঁজ নেননি। তবে পরের দিন সেই দোকানে গিয়ে টিকিট মেলাতে গিয়ে তাজ্জব হয়ে যান শক্তিবাবু। নিজের চোখকেও তিনি বিশ্বাস করতে পারেননি। লেগে গিয়েছে এক কোটি টাকা। আনন্দে কার্যত হতবাক হয়ে পড়েন গরিব পরিবারে বড় হওয়া শক্তিবাবু।

তিনি বলেন, একসঙ্গে ১ লাখ টাকা কোনওদিন চোখে দেখিনি। আমি ১ কোটি টাকা জিতে গেলাম। ভাবতেই পারছি না। এই টাকা অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার হয়ে যাবে। নিয়ম মেনে টাকা কেটে পুরো টাকাটাই তাঁর অ্যাকাউন্টে আসবে বলে জানানো হয়েছে। এই টাকা নিয়ে কী করবেন তা এখনও ঠিক করে উঠতে পারেননি তিনি। তবে এই টাকায় একটা মনের মতো বাড়ি তৈরি করতে চান তিনি। আর সেই সঙ্গে বৃদ্ধা মা-সহ পরিবারের সকলকে ভালভাবে দেখাশোনা করতে চান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here