মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা’র সঙ্গে যুদ্ধ করতে গেলে কী কী পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে? সেই নিয়মকানুন চিকিৎসক ছাড়াও জানেন করোনা জয়ীরা। যাদের শরীরে এই মারণ রোগ বাসা বেঁধেছিল তারাই সবথেকে বেশি জানেন কীভাবে লড়ে নিজেকে বাঁচাতে হয় এই ভাইরাসের হাত থেকে।  নানা রকম টোটকা বা উপদেশের থেকে তাদের মুখের কথাই এখন গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ মানুষের কাছে। এই কথা ভেবেই আবারও এক অভিনব উদ্যোগ নিলেন যাদবপুরের তারকা সাংসদ মিমি চক্রবর্তী।

স্কটল্যান্ড ফেরত কলকাতার বাসিন্দা মনামি বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলে সাধারণ মানুষের মনে সচেতনতার বার্তা পৌঁছে দেবেন মিমি। স্কটল্যান্ড ফেরত ওই তরুণী করোনা আক্রান্ত হয়ে কলকাতায় চিকিৎসাধীন থেকে এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। কিন্তু কীভাবে এই মারণ রোগ বাসা বেঁধেছিল তার শরীরে, কী কী উপসর্গ ছিল, কেমন ভাবেই বা লড়াই করলেন মনামী– এইসব প্রশ্নের উত্তর সাক্ষাৎকারের আঙ্গিকে মিমির সঙ্গে আজ রবিবার ইনস্টাগ্রাম লাইভে জানাবেন ওই তরুণী। শনিবার অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়াতে এমনটাই জানিয়েছেন।

স্কটল্যান্ড থেকে কলকাতা ফিরে অসুস্থ হন মনামী। অসুস্থতা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। ২০ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত করোনার সঙ্গে তাঁর যে লড়াই সেই সব অভিজ্ঞতাই লাইভে মিমির সঙ্গে জানাবেন মনামী। করোনা জয়ী মনামী রাজ্য সরকারের ডাকে কলকাতায় প্লাজমা থেরাপিতে সাহায্যে করবেন বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই কেরল এই প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করে সাফল্য পেয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকেই এই বিষয়ে পরীক্ষা শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। রাজ্য সরকারের সঙ্গে যৌথভাবে এই পরীক্ষা করবে CSIR-IICB। আর সেই কাজে সাহায্যে করবেন কলকাতার প্রথম করোনা জয়ী তরুণী মনামী বিশ্বাস।

 

সাংসদ হিসেবে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন মিমি। অতিমারীর পরিস্থিতিতে শুধু সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানো নয়, একই সঙ্গে পথ পশুদের জন্যও সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। এবার সচেতনতা প্রচারে সাংসদের এই নবতম পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন অনেকেই। মনামী র সঙ্গে এই অনুষ্ঠানের বিষয়ে মিমি জানান, “আমি একটি খবরে মনামী’র সাক্ষাৎকার পড়ে খুবই মুগ্ধ হই। তখনই আমার মনে হয় করোনা’র সঙ্গে লড়াইয়ে ওর অভিজ্ঞতা সকলের জানা উচিত। এতে করে সকলের মধ্যে কিছুটা হলেও আতঙ্ক কমবে।” রবিবার বিকেল ৬ টায় মিমির ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল থেকে দেখা যাবে এই বিশেষ অনুষ্ঠান।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here