kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: বান্ধবীর বাড়ি থেকে আর ঘরে ফেরা হল না ১৩ বছরের অপর্ণার। জরাজীর্ণ সেতু ভেঙে পড়ল মাঝ নদীতে। ১০ জন নদীতে পড়ে যায়। সকলকে উদ্ধার করা গেলেও বাঁচানো গেল না ১৩ বছরের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অপর্ণা রায়কে। বৃহস্পতিবার বিকালে মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়ি খাগড়াবাড়ি ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের একহালিয়া এলাকায়। এদিন স্থানীয় মাধব রায়ের মেয়ে অপর্ণা চাঁদেরডাঙা এলাকায় বান্ধবীর বাড়িতে যায় বিশ্বকর্মা পুজো উপলক্ষে। ফেরার পথে হলহলিয়া নদীর ওপর ওই জরাজীর্ণ  বাঁশের সাঁকোটি পার হচ্ছিল অপর্ণা-সহ আরও ১০ জন। সেই সময় আচমকাই সাঁকোটি ভেঙে পড়ে নদীতে।

স্থানীয়দের তৎপরতায় সকলকে উদ্ধার করা গেলেও অপর্ণা-সহ আরও একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের ময়নাগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই কর্তব্যরত চিকিৎসক অপর্ণাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন এবং অপরজনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জরাজীর্ণ এই সাঁকোটি দিয়ে এলাকার বহু মানুষ পারাপার করে নিয়মিত। দীর্ঘদিন রক্ষণাবেক্ষণ না হওয়ায় সাঁকোটি ইদানীং দুর্বল হয়ে পড়েছিল। এলাকার মানুষের দাবি, প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে বিষয়টি জানালেও কোনও কাজ হয়নি। আর সেই জরাজীর্ণ সেতুর বলি হতে হল এলাকার ১৩ বছরের ওই নাবালিকাকে। প্রশাসনের এই উদাসীনতার জন্য এলাকার মানুষ ক্ষুব্ধ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here