kolkata bengali news

ডেস্ক: টানা প্রায় এক সপ্তাহ নিখোঁজ থাকার পর এদিন হাওড়া স্টেশনে খোঁজ মিলল নোডাল অফিসার অর্ণব রায়ের। এদিন সকালে তাঁকে হাওড়া স্টেশন থেকে উদ্ধার করে সিআইডি। প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে। মোবাইল টাওয়ারের লোকেশন খতিয়ে দেখেই তাঁর হদিশ পেয়েছে পুলিশ। বিগত সাত দিন ধরেই নিখোঁজ থাকার পর এদিন হাওড়া স্টেশনে উদ্ধার করা হয় অর্ণবকে। যদিও এখনও পর্যন্ত বোঝা যাচ্ছে না অর্ণবের অন্তর্ধান রহস্যের পিছনে আসল উদ্দেশ্য কী।

পুলিশ সূত্রে খবর, স্টেশন থেকে উদ্ধার করার পর আপাতত তাঁকে শ্বশুরবাড়িতে বিশ্রামের জন্য রাখা হয়েছে৷ এরপর তাঁকে জেরা করবে সিআইডি। তবে অর্ণব উদ্ধার হওয়ার পরই একাধিক প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে শুরু করেছে। যেমন অর্ণব হাওড়া স্টেশনে কী করছিলেন এবং সেখানে এলেন কী ভাবে? বাপেরবাড়িতে থাকা সত্ত্বেও, কেন অর্ণব রায়ের স্ত্রী কিছু জানতে পারলেন না? তবে অর্ণবকে আপাতত জিজ্ঞসাবাদ করা হচ্ছে না। প্রাথমিক শুশ্রূষার পরই তাঁকে প্রশ্ন করে সে সব রহস্যের সমাধান করতে পারে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, ভোট শুরু হওয়ার পরই গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না অর্ণবকে। কৃষ্ণনগর কেন্দ্রের ভিভিপ্যাটের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। ফলে তৈরি হচ্ছিল আশঙ্কা, দুশ্চিতাও ঘিরে ধরছিল তাঁর পরিবারকে। যেই গাড়ি তিনি ব্যবহার করতেন সেই গাড়ির সন্ধানও মিলছিল না। যত দিন গড়াচ্ছিল ততই রহস্য দানা বাঁধছিল নিখোঁজ অর্ণবকে নিয়ে। এরই মাঝে অর্ণবের স্ত্রী দাবি করেন, কোনও ভাবেই মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছিলেন না অর্ণব। নির্বাচনের মাঝে নোডাল অফিসার নিখোঁজ হয়ে যাওয়ায় প্রশাসনের উপরও চাপ বাড়ছিল। নদিয়া জেলা প্রশাসনের কাছে রিপোর্ট তলব করে নির্বাচন কমিশন। বিরোধীরাও এই ঘটনায় রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির দিকে আঙুল তোলা শুরু করেছিল।

এক সপ্তাহ পর অর্ণবের খোঁজ মেলায় অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে তাঁর পরিবার। তবে তিনি কোথায় গিয়েছিলেন, কোথায় ছিলেন, কী করছিলেন এসব প্রশ্নই ভাবাচ্ছে পুলিশ। যার উত্তর আপাতত পাওয়ার কোনও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here