কাউন্সিলরদের না জানিয়েই এলাকায় আসায় দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে বিধায়ক

0
55

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্ধমান: ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে বেরিয়ে ফের বিতর্কের মুখে পড়লেন বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়। মঙ্গলবার বর্ধমান শহরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে এই কর্মসূচি পালনের জন্য বিধায়ক সহ পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলর খোকন দাস, কাঞ্চন কাজি প্রমুখ নেতারাও তাঁর সঙ্গী হন। এদিন সকাল থেকেই ৬ নম্বর ওয়ার্ডের এই ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিকে ঘিরে গোটা এলাকায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ায়। বেশ কয়েকটি বাড়িতে গিয়ে তাঁদের অভিযোগ সম্পর্কেও বিস্তারিত খোঁজ নেন রবিবাবু। উল্লেখ্য, ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে যাঁরা সরাসরি ফোন করছেন তাঁদের তালিকা জেলায় জেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। বিশেষত স্থানীয় বিধায়কদের কাছেও পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেই তালিকা। সেই তালিকা নিয়েই তাঁদের সঙ্গে দেখাও করছেন বিধায়করা।

এদিনও রবিবাবু সেই কর্মসূচিই পালন করতে যান ৬ নম্বর ওয়ার্ডে। এদিকে এদিন ৬ নম্বর ওয়ার্ডে পা দিতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর মহম্মদ সেলিম এবং তাঁর অনুগামীরা। সরাসরি এদিন স্থানীয় কাউন্সিলরদের না জানিয়ে ওয়ার্ডে আসায় তাঁরা রবিবাবুকে ঘিরে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখান।

কার্যত দলেরই কর্মীদের এই বিক্ষোভের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে গোটা শহর জুড়েই। বাধ্য হয়েই রবিবাবু তাঁর নির্দিষ্ট কর্মসূচি দ্রুত শেষ করে চলে যান ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে। উল্লেখ্য, ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচীকে পালন করতে বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক রবিরঞ্জনবাবু ৫ সদস্যের একটি বিধায়ক কমিটি তৈরি করেছেন। সেই কমিটি নিয়েও এদিন ক্ষোভ প্রকাশ করেন ৬নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল সমর্থকরা। তাঁরা সরাসরি অভিযোগ করেছেন, সারা বছর তাঁরা সবরকমের কাজে ওয়ার্ডে কাজ করে যাচ্ছেন। আর বিধায়ক যখন ওয়ার্ডে আসছেন তখন তাঁদের জানানোই হচ্ছে না, এটা বরদাস্ত করা হবে না। এ ব্যাপারে তাঁরাও পাল্টা ‘দিদিকে বলো’ ফোন নম্বরে অভিযোগ জানাবেন বলে এদিন জানিয়েছেন। এদিন রবিরঞ্জনবাবু জানিয়েছেন, ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে দলের নির্দেশে যাঁদের সঙ্গে কথা বলার ছিল তিনি তাঁদের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছেন।

তাঁরা জানিয়েছেন, তাঁদের কোনও অভিযোগ নেই। যদিও এদিন কয়েকজন এলাকায় জঙ্গল হয়ে থাকা, সাপের উত্পাত, কলের জলের লাইন প্রভৃতি নিয়ে কিছু অভিযোগ জানিয়েছেন। তাঁদের মহকুমা শাসকের কাছে অভিযোগপত্র দেওয়ার কথা বলেছেন তিনি। অন্যদিকে, রবিরঞ্জনবাবুর ৫ সদস্যের কমিটির অন্যতম সদস্য কাঞ্চন কাজি জানিয়েছেন, ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি একান্তই দিদির নির্দেশে বিধায়কের নিজস্ব কর্মসূচি। দলের নির্দেশে বিধায়ককে কোথায় যেতে হবে বা কি করতে হবে তা বলা আছে। এখানে প্রাক্তন কাউন্সিলরদের খবর দেওয়ার কোনেও বিষয় নেই। উল্লেখ্য, সম্প্রতি ২৫নম্বর ওয়ার্ডে গিয়েও বেশ কয়েকজন নাগরিক অভিযোগ করেন, বিধায়কের সঙ্গে নেতাদের ভিড় থাকায় তাঁরা খোলামেলাভাবে কথা বলতে পারছেন না। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই বিধায়ক রবিরঞ্জনবাবু প্রাক্তন কাউন্সিলরদের খবর দিতে চাননি। তবে যাঁরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন, তাঁরা তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হওয়ার ভয়েই বিক্ষোভ দেখিয়েছেন বলে কাঞ্চন কাজি জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here