kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, সোনারপুর: লকডাউনের আবহে বিপদে পড়েছে দুঃস্থ মানুষজন। খাদ্য সংকটের জেরে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন অনেকে। অসহায়, দুঃস্থ মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে এবার এগিয়ে এলেন সোনারপুরে বিধায়ক ফিরদৌসি বেগম। চালু হয়েছে কমিউনিটি কিচেন। যার পোশাকি নাম ‘নগরলক্ষ্মী’।

দক্ষিণ শহরতলির সোনারপুর, নরেন্দ্রপুর, গড়িয়া-সহ সোনারপুর উত্তর বিধানসভা এলাকার অসহায় হতদরিদ্র মানুষের মুখে দু’বেলা অন্ন তুলে দেওয়ার জন্য কমিউনিটি কিচেন চালু করেছেন সোনারপুর উত্তরের বিধায়ক ফিরদৌসি বেগম। এলাকার কোনও অসহায় মানুষ বিশেষ একটি নম্বরে ফোন করে খাবার চাইলে বিধায়কের প্রতিনিধিরা তাঁর বাড়িতে গিয়ে রান্না করা খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। এর পাশাপাশি ভবঘুরে, প্রতিবন্ধী মানুষদের কাছে প্রতিনিয়ত খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন বিধায়কের প্রতিনিধিরা।

লকডাউনের আবহে অসহায়, দুঃস্থ মানুষজনের মুখে খাবার তুলে দিতে কিছুদিন আগে এই জেলায় কমিউনিটি কিচেন চালু করেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক শওকত মোল্লাও অভিষেকের দেখানো পথে হেঁটে তাঁর এলাকায় কমিউনিটি কিচেন চালু করেছেন। এবার সেই পথে হাঁটলেন সোনারপুর উত্তরের বিধায়ক ফিরদৌসি বেগম। কমিউনিটি কিচেনের মাধ্যমে খাবার পৌঁছে দেওয়ার এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘নগরলক্ষ্মী’।

কেন এমন উদ্যোগ? বিধায়ক ফিরদৌসি বেগমের বক্তব্য, লকডাউনের কারণে মানুষ ঘরবন্দি। ভবঘুরে, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মানুষ ছাড়াও দিন আনা দিন খাওয়া বহু মানুষ আজ ভাত জোটাতে পারছেন না। শুধু চাল, ডাল, আলু দিয়ে তাঁদের সমস্যা মেটানো যাচ্ছে না। তাই রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। সোনারপুর উৎসব কমিটির সহযোগিতায় পুরো ব্যবস্থার তদারকি করছেন তার স্বামী তথা রাজপুর-সোনারপুর পুরসভার কাউন্সিলর নজরুল আলি মণ্ডল। প্রতিদিন দুই থেকে তিন হাজার মানুষের কাছে রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব এবং পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে খাবার তৈরির পাশাপাশি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ায় খুশি এলাকার বাসিন্দারা। এমন উদ্যোগ নেওয়ার জন্য বিধায়ক ফিরদৌসি বেগমকে প্রশংসা করেছেন সোনারপুরবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here