ডেস্ক: পঞ্চায়েত ভোটের নিরাপত্তা সংক্রান্ত ইস্যুতে আদালতের দ্বারস্ত হয়েছে রাজ্যের বিরোধী দলগুলি। ফলস্বরুপ আদৌ ১৪ মে পঞ্চায়েত নির্বাচন হবে কিনা তা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। তবে নির্বাচন কমিশন থেকে শুরু করে শাসকদলও নির্দিষ্ট দিনে ভোট করতে মরিয়া। ভোটের নিরাপত্তার দিকটি মাথায় রেখে কোনও রকম আপোষ করতেও রাজি নয় তাঁরা। এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনের নিরাপত্তা ইস্যুতে নয়া নির্দেশিকা জারি করল নির্বাচন কমিশন। ভোট চলাকালীন বুথের ভিতর রাজনৈতিক দলের পোলিং এজেন্টরা মোবাইল নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিল কমিশন।

কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, নির্বাচন চলাকালীন বুথের ভিতর মোবাইল সহ প্রবেশের অধিকার থাকবে শুধুমাত্র প্রিসাইডিং অফিসার, রিটার্নিং অফিসার এবং অবজার্ভারদের। কারন, এসএমএফ নির্ভর এক প্রযুক্তিগত পদ্ধতির মাধ্যমে অফিসারদের বুথের পরিস্থিতি জানাতে হয়। বুথে হিংসা ছড়ালে তা এসএম এস কোডের মাধ্যমে জানাতে হয় অফিসারদের। ভোটপর্ব যদি শান্তিপূর্ণ ও স্বাভিবক ভাবে হয় , তাহলেও তা জানাতে অফিসারদের তাই ফোন রাখার অধিকার থাকবে শুধুমাত্র তাদেরই। রাজনৈতিক দলের পোলিং এজেন্টদের হাতে যদি মোবাইল থাকে সেক্ষেত্রে বুথের ভিতরের খবর বাইরে ফাঁস হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সেটা যাতে না হয় সেই কারনেই কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের নিয়ম মেনে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশনের।

অন্যদিকে, কমিশনের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে বিরোধী দলগুলি। তাদের দাবি, যদি তৃণমূলের পোলিং এজেন্টরা মোবাইল নিয়ে ঢোকেনও তাঁদের আটকাবে কে? প্রশাসন কি আদৌ এই নির্দেশ কড়াভাবে পালন করতে সক্ষম হবে? গোটা বিষয়টি সঠিক ভাবে পরিচালনার জন্য কমিশনকে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিরোধীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here