kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রী উভয়েই সাম্প্রদায়িক ভাষণ দিচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলল। সংযুক্ত মোর্চা। বন্ধ করতে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংযুক্ত মোর্চা নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন জানিয়েছে। সিপিএম নেতা রবিন দেব আজ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে দেখা করে এই মর্মে আবেদন জানান। পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি’র তরফে জাতপাতের ভিত্তিতে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দেওয়া হচ্ছে বলেও তারা নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

কয়েকদিন আগে তারকেশ্বরে ভোট প্রচারে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, লক্ষ্য রাখতে হবে সংখ্যালঘুদের ভোট ভাগ যেন না হয়। আইএসএফ নেতা আব্বাস সিদ্দীকিকে ‘চ্যাংড়া’ এবং বিজেপির থেকে টাকা খেয়ে রাজনীতির ময়দানে জলঘোলা করতে নেমেছে বলেও তোপ দাগেন মমতা৷ পাশাপাশি মুসলিম ভোটারদের একজোট হয়ে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীদেরকে জেতানোর ডাক দিয়েছিলেন।

এসব বিতর্কিত বিষয় উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়নমন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৮টা নাগাদ কমিশন মমতাকে ই-মেল করে জরুরি নোটিশ পাঠায়৷ আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জবাব এবং ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে মমতাকে। অন্যথায় তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানিয়েছে কমিশন। আজ বামেরা শুধু তৃণমূল নেত্রী নন, প্রধানমন্ত্রীকেও একই অভিযোগে অভিযুক্ত করে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে।

অন্যদিকে, ক্যানিং পূর্বে সংযুক্ত মোর্চার পোলিং এজেন্টকে মারধর ও ওইসব এলাকায় সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে সংযুক্ত মোর্চা আগামী দফার নির্বাচনে ভাঙড় বিধানসভা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করার পাশাপাশি ভাঙড় থানার ওসি-কে অপসারণের দাবি জানিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here