kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট ভারত রফতানি করায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উচ্ছ্বসিত প্রশংসার উত্তর দিলেন নরেন্দ্র মোদী। বৃহষ্পতিবার তিনি জানান, কোভিড–১৯ এর বিরুদ্ধে মানবতার যুদ্ধে ভারত সম্ভাব্য সমস্ত রকম সহায়তা করবে।

করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ওষুধ হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনস্ট্রেশন হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কে চিহ্নিত করার পরই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নরেন্দ্র মোদীর কাছে ওষুধটি চেয়ে বসেন। সমগ্র বিশ্বে ভারত ওষুধটির সর্ববৃহৎ উৎপাদক হলেও দেশে দ্রুত হারে বেড়ে চলা কোভিড–১৯ সংক্রমণের গতিপ্রকৃতি বুঝে সরকার গত মাসেই হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। গত সপ্তাহে ট্রাম্প ও মোদীর টেলফোনে কথাবার্তা হয়। সেই টেলিফোনের বিষয়বস্তু মোদী টুইট করে জানান। কোভিড–১৯ এর বিরুদ্ধে একসঙ্গে দুই দেশ লড়াই করতে বদ্ধপরিকর এবং সেই লড়াইয়ে জয় অনিবার্ষ টুইটে প্রধানমন্ত্রী এমনটাই জানান। কিন্তু তারপরই ট্রাম্প ভারতের উদ্দেশে সরাসরি হুমকি দিয়ে বলেন ভারত যদি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা না তুলে নেয় তাহলে ভারতকে ভুগতে হবে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শাসানির পরই ভারত হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের রফতানির ওপর আংশিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় এবং আমেরিকায় ওষুধটি পাঠানোর ব্যবস্থা করে। ধমকে কাজ হয়েছে বুঝে ট্রাম্পও সুর বদলান এবং এই রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার জন্য ‘বন্ধু’ মোদীর প্রশংসা করা শুরু করেন। একটি টুইটে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, যে তাঁর (মোদী’র) দৃঢ় নেতৃত্ব শুধু ভারতকেই সাহায্য করছে না, এই যুদ্ধে মানবতাকেও সাহায্য করছে। তিনি জানান, ভারতের এই উপকার আমেরিকা চিরদিন মনে রাখবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন অভুতপূর্ব প্রশংসার উত্তরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বৃহষ্পতিবার টুইট করে বলেন, ”আপনার সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত। এমন সময়ই বন্ধুদের কাছে আনে।” ভারত–মার্কিন সম্পর্ক এখনই সবথেকে দৃঢ় হয়েছে জানিয়ে মোদী প্রতিশ্রুতি দেন, কোভিড–১৯ এর বিরুদ্ধে মানবতার এই যুদ্ধে ভারত সবরকম ভাবে সাহায্য করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here