kolkata bengali news

ডেস্ক: বালাকোটে ভারতীয় সেনার সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বারে বারে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংসের প্রমাণ চেয়েছেন মোদীর কাছে৷ আদও বালাকোটে জঙ্গি ঘাঁটিতে কোনও আক্রমণ হয়েছিল কি না তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছিল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে৷ শিলিগুড়ি লোকসভা ভোটের প্রচারে এসে ঝাঁঝালো আক্রমণের সুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সব প্রশ্নেরই জবাব দিলেন মোদী৷ বললেন, ‘বালাকোটে সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর দিদি এত কেঁদেছেন যে পাকিস্তানের কাছে হিরো হয়ে গেছেন৷’ এদিন দিদিকে লক্ষ্য করে মোদীর একের পর এক আক্রমণ শুনে বোঝাই গিয়েছে তিনি শুধু সময়ের অপেক্ষায় ছিলেন৷ পুলওয়ামায় ভারতীয় সেনার কনভয়ে জঙ্গি হামলার পর যখন মোদী সহ গোটা দেশ পাকিস্তানের দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছিল, সেই সময় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, তদন্ত না করে কেন পাকিস্তানকে দোষারোপ করা হচ্ছে৷

শুধু তাই নয়, বালাকোটে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংসের পরেও মোদীকে লক্ষ্য করে একের পর এক প্রশ্নবাণ ছুঁড়ে দিয়েছেন দিদি৷ এতদিন সেই প্রশ্নের যোগ্য জবাব না দিলেও শিলিগুড়িতে এসে সুযোগ বুঝে সব জবাবই দিয়ে গেলেন আক্রমণাত্মক ভঙ্গীতে৷ জনগণের কাছে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, ‘পাকিস্তানে জঙ্গিরা মারা গিয়েছে, আপনারা খুশি তো’? জনগণও এদিন জবাব দিয়েছে ‘হ্যাঁ খুশি’, সকলের উদ্দেশ্যে নমোর প্রশ্ন ছিল ? ‘আমি ঠিক করেছি না ভুল করেছি’, উত্তর আসে ‘ঠিক ঠিক’৷ এদিন কেন্দ্রীয় সরকারের বালাকোটে সার্জিকাল স্ট্রাইকের এই সিদ্ধান্তে তাদের গর্ব হচ্ছে কিনা জানতে চাইলেও গর্ব হচ্ছে বলে উত্তর দিয়েছেন জনতা৷

এখানেই শেষ নয়, মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দেগে মোদী আরও বলেন, পাকিস্তানে জঙ্গি নিধনে কিন্তু অনেকে খুব দুঃখ পেয়েছেন।  বালাকোটে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে দেওয়ায় রাওলপিণ্ডি, ইসলামাবাদের মানুষ অতটা কষ্ট পাননি যতটা দিদি পেয়েছেন৷ বালাকোটে হামলা হয়েছে দিদি ও তাঁর সঙ্গীদের পছন্দ হয়নি৷ এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাকিস্তানের উমেদার বলেও কটাক্ষ করেন মোদী৷ আসলে পাকিস্তানের চোট লাগলে যন্ত্রণা হয় মমতার, আক্রমণে শানিয়ে বললেন সে কথাও৷ একহাত নেন কংগ্রেসকেও৷

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here