মহানগর ওয়েবডেস্ক: লাদাখের গালোয়ানে ভারতীয় সেনার ওপর হামলার পাল্টা দিয়ে চিনের বিরুদ্ধে কার্যত ডিজিটাল স্ট্রাইক শুরু করেছে ভারত সরকার। আর সেই হামলার প্রথম চরণ হিসেবে টিকটক সহ ৫৯ টি অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। দ্বিতীয় ধাপে এবারফাইভ-জি নিয়েও কড়া পদক্ষেপ নিতে উদ্যোগী হল ভারত সরকার। ভারতে 5G পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন যন্ত্রপাতি সরবরাহ করতে আগ্রহী চিনের সংস্থা হুয়াই। তবে এই উত্তেজনামূলক পরিস্থিতিতে ওই চিনা সংস্থাকে বরাত দেওয়া হবে কিনা সে নিয়ে বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ, এস জয়শঙ্কর, রবি শংকর প্রসাদ এবং পীযূষ গোয়েল। পুরনো বরাদ্দ বাতিল করার উদ্দেশ্যেই এই বৈঠক বলে জানা যাচ্ছে সূত্র মারফত।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে 5G পরিষেবার পরীক্ষামূলক প্রকল্পে অংশ নেওয়ার বিষয়ে হুয়াই নামের ওই সংস্থাকে অনুমতি দিয়েছিল ভারত সরকার। তবে ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তে জেরে ভারতের উপর চাপ বাড়ায় আমেরিকা। মাঝে করোনা পরিস্থিতিতে পাঁচ বছরের জন্য পিছিয়ে যায় 5G নিলাম। অন্যদিকে ২০২১ সালের মে মাস পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হুয়াইয়ের সমস্ত দ্রব্য নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভারতীয় যে হুয়াইয়ের চাপ বাড়তে চলেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে মন্ত্রীদের গোপন বৈঠকে কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সে বিষয়ে কোনও তথ্য মেলেনি। যদিও এটুকু আন্দাজ করা হচ্ছে ভারতে হুয়াইয়ের ব্যবসা করা বেশ কঠিন হতে চলেছে।

প্রসঙ্গত, তথ্য পাচারের অভিযোগে ইতিমধ্যেই টিকটক সহ ৫৯ টি অ্যাপ বাতিল করেছে ভারত সরকার। যে ঘটনাকে চীনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল স্ট্রাইক বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী দিনেও সরকার এই ধরনের স্ট্রাইক চালিয়ে যাবে সে আভাস মিলেছে ইতিমধ্যেই। গোটা ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে চিন প্রশাসন। তবে ভারত সরকার যে থামার পাত্র নয় এখনই তা সহজেই অনুমেয়।

Modi ministry done a meeting about Indias 5G

Narendra Modi, Prime Minister, China, India, weibo, 5G

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here