storm_modi

ডেস্ক: লোকসভা ভোটের মধ্যে বৃষ্টি এবং ধূলিঝড়ে বিপর্যস্ত গুজরাট, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং মণিপুর। গত দু-দিনের ঝড়-বৃষ্টিতেই এই চার রাজ্যে কমপক্ষে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং বহু মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এই ঘটনায় উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গুজরাটে মৃত ১০ জনের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। তবে প্রধানমন্ত্রী কেবল গুজরাটের দুর্যোগ বিধ্বস্তদের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ।

‘প্রধানমন্ত্রী কেবল গুজরাটের মানুষদের জন্যই উদ্বিগ্ন’ বলে কটাক্ষও করেছেন তিনি। মূলত পশ্চিমী ঝঙ্ঝার জেরেই গত মঙ্গলবার থেকে গুজরাট, রাজস্থান, পঞ্জাব, হিমাচলপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ এবং মণিপুরে ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তবে এই ঝড়-বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মূলত চার রাজ্য। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত মধ্যপ্রদেশ। সেখানে মৃতের সংখ্যাও সবচেয়ে বেশি, ১৬। এছাড়া রাজস্থানে ৬ এবং মণিপুরে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই প্রসঙ্গ তুলেই বুধবার প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে কমল নাথের টুইট, ‘মোদীজি, আপনি পুরো দেশের প্রধানমন্ত্রী, কেবল গুজরাটের নন। মধ্যপ্রদেশেও কমপক্ষে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু আপনার সমবেদনা কেবল গুজরাটের মধ্যে সীমাবদ্ধ।’ গুজরাট বিজেপি শাসিত রাজ্য হওয়ার কারণেই সেখানকার মানুষের প্রতি নরেন্দ্র মোদীর সমবেদনা বর্ষিত হয়েছে অভিযোগ করে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর তোপ, ‘এখানকার শাসকদল বিজেপি নয়, কিন্তু এখানেও মানুষ বাস করে।’

প্রসঙ্গত, গত দু-দিনে বৃষ্টি ও ধূলিঝড়ে গুজরাটের মূলত উত্তরের জেলাগুলি এবং সৌরাষ্ট্র অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দুর্যোগ বিধ্বস্ত সেই উত্তর গুজরাটেই হিম্মতনগর জেলায় এদিন নরেন্দ্র মোদীর জনসভা রয়েছে। যদিও ঝড়-বৃষ্টির জেরে মোদীর সভাস্থল লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে। এখন সেখানে সভা করার পরিস্থিতিও নেই। তবে লোকসভা ভোটের প্রাক্কালে সভা করতে না পারলেও ভোট হাতছাড়া করতে নারাজ নরেন্দ্র মোদী। সেজন্যই তিনি গুজরাটে প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করলেন বলে রাজনৈতিক মহলের দাবি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here