kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভোট মিটতেই ঝুলি থেকে বেরিয়ে পড়ল বেড়াল। লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন বেকারত্ব ইস্যুতে মোদী সরকার কোনও তথ্য পেশ করেনি। তবে এবার কেন্দ্রের তরফেই স্বীকার করে নেওয়া হল, নোট বাতিলের পর বিগত ৪৫ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ হারে পৌঁছে গিয়েছে বেকারত্ব। কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ শ্রম মন্ত্রালয়ের তরফে এই তথ্যের সত্যতা স্বীকার করা হয়েছে। মনে করিয়ে দেই, ভোটের আগে যখন এই তথ্য একটি বেসরকারি সংস্থা প্রকাশ্যে এনেছিল, তখন সেটিকে সরাসরি ভুয়ো বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। বিস্ফোরক এই সমীক্ষা ধামাচাপা দিয়ে রাখার প্রতিবাদে পদত্যাগও করেছিলেন পরিসংখ্যান কমিশনের বেশ কয়েকজন সদস্য।

তবে কেবল বেকারত্বের হারে ধাক্কা খায়নি মোদী সরকার। বেকারির হার ৬.১ শতাংশে পৌঁছে যাওয়ার পাশাপাশি ‘দ্রুততম বৃদ্ধি পাওয়া দেশে’র তকমাও হারিয়েছে ভারত। সেই জায়গায় উঠে এসেছে চিন। সম্প্রতি বেকারত্বের যে তথ্যে কেন্দ্র সিলমোহর দিয়েছে তা নোটবন্দির পরবর্তী সময় অর্থাৎ ২০১৭-১৮ সালের ঘটনা। কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, শহুরে এলাকায় বেকারত্বের হার ৭.৮%। গ্রামীণ এলাকায় তা ৫.৩%। গোটা দেশে পুরুষদের মধ্যে বেকারত্বের হার ৬.২%। মহিলাদের মধ্যে তা ৫.৭%। এই পরিসংখ্যান চোখ কপালে তুলে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার আগে বছরে ২ কোটি চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু এবার নির্বাচনের আগে কর্মসংস্থান সম্পর্কিত কোনও আশ্বাসবাণী শোনা যায়নি তাঁর মুখ থেকে।

লোকসভা ভোটের আগেই অবশ্য এই সমীক্ষা প্রকাশ্যে আসার ফলে অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছিল মোদী সরকারকে। কিন্তু সে সময় যে রিপোর্টকে অস্বীকার করা হয়েছিল, এখন সেই রিপোর্টকেই সঠিক বলে মেনে নেওয়ায় কার্যত কেন্দ্রের দ্বিচারিতাই প্রকাশ পেয়েছে বলে মত বিশেষজ্ঞ মহলের। সরকারের সুরে সুর মিলিয়ে সেই সময় নীতি আয়োগের তরফে জানানো হয়েছিল, ওই তথ্য চূড়ান্ত নয়। কিন্তু ভোট মিটতেই সেই তথ্যকে চূড়ান্ত বলে মেনে নেওয়ায় প্রচুর প্রশ্ন উঠে গিয়েছে সরকারের সামনে। প্রথমত, ভোটের ফায়দা তুলতেই কি ওই রিপোর্টের পরিসংখ্যানকে ভুয়ো বলে দাবি করা হয়েছিল। দ্বিতীয়ত, এই বেকারত্বের হার কি নোটবন্দির ব্যর্থতাকেই ফের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে না? এই প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার সম্ভাবনা অবশ্য খুব একটা নেই বললেই চলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here