FotoJet-86

ডেস্ক: বিজেপি তো চাইছেই, প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রীও। আর ভোটের মরসুমে তো আলাদাই চাহিদা কেন্দ্রীয় বাহিনীর। শয়ে শয়ে আধাসেনা ইতিমধ্যেই ভোট পরিচালনা করতে বাংলায় এসে উপস্থিত। ভোটাররা যেমন চাইছেন, তেমনই প্রত্যেক বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন নিয়ে সরব হয়েছেন ভোটকর্মীরাও। বিজেপি নেতৃত্ব তো আবার প্রত্যেক বুথেই বাহিনীর দাবি জানিয়ে রীতিমতো তুলকালাম করছে কমিশনের দুয়ারে। কিন্তু এই সব কিছুর মাঝে একজন রয়েছেন যিনি কেন্দ্রীয় বাহিনী চান না। তিনি আর কেউ নন, রায়গঞ্জের সিপিএম সাংসদ মহম্মদ সেলিম।

এদিন রায়গঞ্জের বিদায়ী সাংসদকে বলতে শোনা যায়, তিনি কেন্দ্রীয় বাহিনী চান না। সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলে নাকি তাঁর কোনও সমস্যাই নেই। কারণ তাঁর ‘নিজস্ব বাহিনী’ রয়েছে। তাঁর সমর্থক বাহিনী। এদিন রায়গঞ্জের সাংসদ বলেন,

১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলেও আমার কোনও সমস্যা নেই। আমার বুথ সামলাবে আমার কর্মী, সমর্থক বাহিনী।

তবে রাজ্যজুড়ে সিপিএমের সংগঠনের যখন ভগ্নপ্রায় দশা, তখন কীভাবে নিজের বাহিনী দিয়ে ভোট করাবেন, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে রাজনৈতিক মহলের।

বিশেষত এবারের লড়াইটা মোটেই সহজ হবে না সেলিমের জন্য। কারণ তাঁর বিরুদ্ধে যারা লড়ছেন তাঁরা সকলেই নিজেদের রাজনৈতিক পরিচয় সহ বেশ হেভিওয়েট বলা চলে। রায়গঞ্জে সেলিমের বিরুদ্ধে দীপা দাসমুন্সিকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস। তৃণমূল প্রার্থী করেছে ইসলামপুরের বিধায়ক কানাহাইয়া লাল আগরওয়ালকে। আবার বিজেপিও দেবশ্রী চৌধুরীকে দাঁড় করিয়েছে এই কেন্দ্র থেকে। এমতবস্থায় সিপিএমের আসনটি বাঁচিয়ে রাখা নিঃসন্দেহে বড় চ্যালেঞ্জ হতে চলেছে সেলিমের জন্য।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here