ডেস্ক: সময় যত গড়াচ্ছে, ভারতীয় পেস ব্যাটারি মহম্মদ শামির বৈবাহিক জীবনে সংকটের কালো মেঘ তত বেশি ঘনিয়ে আসছে। মামলা থেকে পিছিয়ে যে আসবেন না তা গতকালই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন হসিন জাহান। রবিবার ফের সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি বলেন, গাড়িতে ওই মোবাইলটি খুঁজে পাওয়ার পরই বদলে যায় শামির আচরণ।

রবিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে শামির স্ত্রী বলেন, ”লালবাজারে সব বয়ানের রেকর্ড জমা দিয়েছি। পুলিশও সহযোগিতা করছে। সব সত্যি প্রকাশ্যে আসবে।” এদিন ফের বিতর্কের মূল শামির গাড়িতে পাওয়া সেই মোবাইল ফোন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে হাসিন বলেন, ওই মোবাইলটি পাওয়ার পর থেকেই শামির ব্যবহার বদলে যায়। সেটি পাওয়ার পর থেকেই সত্যি কথা জানার জন্য ক্রমাগত চাপ দিতে থাকেন তিনি। ফোনটি ঘেঁটেই রহস্যজনক মহিলা আলিশাবার কথাও জেনেছেন হাসিন। সাংবাদিক সম্মেলনে এমন দাবিই করেন তিনি। শামির স্ত্রী’র আরও দাবি, সব ঘটনা জানার পর শামির সঙ্গে কথা বলে মিটমাট করে নিতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শামি কখনই তাঁকে স্ত্রী’র মর্যাদা দেননি। বরং শামি যদি মোবাইল পেয়ে যেতেন তবে এতদিনে ডিভোর্সও হয়ে যেত বলে দাবি হাসিনের।

অন্যদিকে, লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে সোমবারই ক্রিকেটার শামি ও হাসিনের গোপন জবানবন্দি নিতে পারে পুলিশ। মামলা সংক্রান্ত সমস্ত অডিও ক্লিপও সংগ্রহ করে নিয়েছে পুলিশ। অন্যদিকে, এই ঘটনায় শামির দাদাকেও কাঠগড়ায় তুলেছেন হাসিন জাহান। মনে করা হচ্ছে, শামির দাদার বিরুদ্ধে তদন্ত চালাতে এবং তদন্তে অগ্রগতি আনতে উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদ পাড়ি দিতে পারে পুলিশ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here