ডেস্ক: রাত পোহালেই ঐতিহাসিক ২৯ জুলাই, মোহনবাগান দিবস। প্রত্যেক বছরের মতো এবছরও সাড়ম্বরে পালন করতে বদ্ধপরিকর ক্লাব কর্তারা। অনুষ্ঠানের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ‘বিয়েবাড়ি’র ব্যস্ততা গঙ্গাপাড়ের ক্লাবে।

শতাব্দী প্রাচীন এই ক্লাবের জন্ম ১৮৮৯ সালের ১৫ আগস্ট হলেও ২৯ জুলাই মোহনবাগান দিবস পালিত হয় সম্পূর্ণ ভিন্ন কারণে। এই দিনটি শুধু মোহনবাগানীদের জন্য নয়, গোটা বাংলা তথা ভারতের ফুটবলপ্রেমীদের কাছে ঐতিহাসিক দিন। অনেকেই মনে করেন এই বিশেষ দিনটি ব্রিটিশ ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে এক বিশেষ মাত্রা যোগ করেছিল। ১৯১১ সালের ২৯ জুলাই গোড়াক্লাব ইস্ট ইয়র্কশায়ারকে আইএফএ শিল্ডে ২-১ গোলে হারিয়ে প্রথম স্বদেশী দল হিসাবে চ্যাম্পিয়ন হয় মোহনবাগান। ঐতিহাসিক এই দিনটিকে স্মরণ করেই গত কয়েক দশক ধরে মোহনবাগান দিবস পালন করা হয়।

মোহনবাগান দিবসকে কেন্দ্র করে এবারও ময়দানে ক্লাবের মাঠে জাঁকজমক অনুষ্ঠান হতে চলেছে। এবছর ‘মোহনবাগান রত্ন’ পাচ্ছেন বিখ্যাত জাতীয় ফুটবলার প্রদীপ চৌধুরি। জীবনকৃতি পুরস্কার পাচ্ছেন প্রখ্যাত হকি খেলোয়াড় গুরবক্স সিং। যদিও তিনি ইস্টবেঙ্গলের হয়েই বেশি সময় খেলেছেন। এছাড়াও দিকপাল ক্রিকেটার অরুনলালও পাচ্ছেন এই পুরস্কার।

প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দের জেরে এখন বেশ ডামাডোল অবস্থা মোহনবাগানের অন্দরে। সম্প্রতি বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রকাশ্যে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে ক্লাবের মুখ পুড়িয়েছেন কর্তারা। এই পরিস্থিতিতে মোহনবাগান দিবসের জৌলুস ময়দানের ঐতিহ্যশালী ক্লাবটি কতটা ধরে রাখতে পারে সেটাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here