news sports

মহানগর ওয়েবডেস্ক: প্রতীক্ষার অবসান। উৎকন্ঠার প্রহর শেষ। এটিকে-মোহনবাগানের সংযুক্তিকরণের শুক্রবার দুপুরে প্রথম বৈঠকে হয়ে গেল।

এবার থেকে মোহনবাগান আর মোহনবাগান রইল না। শতাব্দী প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী ক্লাবের নাম বদলে হল এটিকে-মোহনবাগান। ক্লাবের নাম বদলালেও জার্সির রং সেই সবুজ-মেরুনই থাকছে।

লোগোতেও কিন্তু মোহনবাগানের চেনা পাল তোলা নৌকা স্থান পাচ্ছে। এটিকের ডানাওয়ালা সিংহ উড়ে গেল। যদিও এটিকে-র নাম থাকছে লোগোতে।

মোহনবাগান ক্লাবের ৮০ শতাংশ শেয়ার কিনেছে এটিকে। ফলে মোহনবাগানের আগে এটিকে বসবে। সঞ্জীব গোয়েঙ্কারা এমনটাই চেয়েছিলেন। এদিন ভার্চুয়াল বোর্ড মিটিংয়ে সেটাতেই মান্যতা দেন বাগান কর্তারা।

তিনবারের আইএসএল চ্যাম্পিয়ন ও জোড়া আই-লিগজয়ী ক্লাব গাঁটছড়া বাঁধার পরেই ফ্যানেদের মনে জল্পনা শুরু হয়েছিল যে, নতুন ক্লাবের নাম, জার্সির রং ও প্রতীক কী হতে পারে। কারণ মোহনবাগান শুধু ক্লাব নয়, আবেগেরও আরেক নাম। এদিনের বৈঠকে মূলত এই তিনটি বিষয় নির্ধারিত হয়ে গেল।

এটিকে মোহনবাগান প্রাইভেট লিমিটেডের প্রিন্সিপাল ওনার সঞ্জীব গোয়েঙ্কা এই বৈঠকের পর এক প্রেস বিবৃতিতে বলেছেন, “মোহনবাগানের ঐতিহ্যের সঙ্গে যেসব কিংবদন্তিরা জড়িয়ে আছেন, তাঁদের সবাইকে আমার প্রণাম। নতুন এই পথ চলায় তাঁদের আশীর্বাদ আমাদের পাথেয়। সবুজ-মেরুনের সেরার সেরা ফুটবল দেখার সৌভাগ্য আমার হয়েছে। ছোটবেলা থেকেই মোহনবাগান আমার হৃদয়ের ভীষণ কাছে। আমরা মোহনবাগানের ঐতিহ্যকে সম্মান জানিয়েই আর জার্সির রঙ একই রাখছি। আমি স্বপ্ন দখি এটিকে-মোহনবাগানকে বিশ্বমানের দলে পরিণত করার।”

এটিকে-মোহনবাগান প্রাইভেট লিমিটেডের অন্যতম মালিক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বলেছেন, “একসঙ্গে পথচলাকে স্যালুট জানাচ্ছি। একসঙ্গে এটিকে-মোহনবাগান ব্র্যান্ড ইতিহাস সৃষ্টি করবে।”

এদিন ঠিক হয়েছে বাংলার ফুটবলের মানোন্নয়নের জন্য রাজ্যে বিশ্বমানের ফুটবল অ্যাকাডেমি গড়ে তুলবে এটিকে-মোহনবাগান। বাগানের তরুণ প্রতিভাবান ফুটবলারদের দলে নেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে প্রেস বিবৃতিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here