মহানগর ওয়েবডেস্ক: কাশ্মীর সমস্যা ভারত ও পাকিস্তান দু’পক্ষ নিজেদের মধ্যে বসে মিটিয়ে নেবে৷ ফ্রান্সে জি৭ এর সম্মেলন চলছে৷ জি ৭ এর অন্তর্ভুক্ত দেশ না হয়েও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিশেষ আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে৷ সোমবার এই সম্মেলনের ফাঁকে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করলেন মোদী৷ দুই নেতার মধ্যে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা হয়েছে৷ সেখানে ট্রাম্পকে মোদী সাফ জানান, এই নিয়ে আমেরিকার মধ্যস্থতার কোনো দরকার নেই৷ পাকিস্তানের সঙ্গে ভারত বসে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করে নেবে বলে জানান আত্মবিশ্বাসী ভারতের প্রধানমন্ত্রী৷ এদিন আলোচনার আগাগোড়া মোদী হিন্দিতে কথা বলেছেন৷ ট্রাম্পকে তা অনুবাদ করে দেওয়া হচ্ছিল৷ ট্রাম্প জানান, গতকাল রাতে আমরা কাশ্মী নিয়ে কথা বলেছি৷ সেখানকার পরিস্থিতি ও বাণিজ্য নিয়ে আমাদের আলোচনা হয়েছে বলে জানান তিনি৷ উল্লেখ্য এর আগে বহুবার ট্রাম্প কাশ্মীরে মধ্যস্থতা করতে চেয়েছিলেন৷

এর আগে অন্তত তিন বার কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কখনও আবার বলেছেন কাশ্মীর ‘জ্বলন্ত সমস্যা’। সেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পই এ বার কার্যত ভারতের সুরে সুর মিলিয়ে বললেন, কাশ্মীর ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক ইস্যু। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও বৈঠকে সেই বিষয়টিতেই সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছেন বলেই কূটনৈতিক সূত্রে খবর।  মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সেটা  সফলভাবে  মোদী বোঝাতে পেরেছেন। ফলে ট্রাম্পের এই অবস্থানকে ভারতের জয় হিসেবেই দেখছে কূটনৈতিক শিবির। খবরে প্রকাশ, এই নিয়ে ট্রাম্পের যেচে নাক গলানোকে মান্যতা দিচ্ছে না হোয়াইট হাউস৷

কাশ্মীর নিয়ে জানতে আগ্রহী আন্তর্জাতিক দুনিয়া৷ ঠিক তাই জি ৭-এর ভারত সদস্য না হলেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ফ্রান্সে নিমন্ত্রণ করা হয়েছে৷ ইংল্যান্ড, ফ্রান্স থেকে শুরু করে এই সম্মেলনের অধিকাংশ রাষ্ট্রই এই নিয়ে নিরপেক্ষ নীতি অবলম্বন করেছে৷ বিশ্ব দরবারে কাশ্মীর ভারতের একেবারে নিজস্ব বিষয় বলেই মনে করে অধিকাংশ রাষ্ট্র৷ পাকিস্তান সেখানে চিন ছাড়া আর কোনও দেশের তেমন সমর্থন পাচ্ছে না৷ ইমরানের দেশ এ’দিনের পর কাশ্মীর নিয়ে কার্যত আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ল৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here