ডেস্ক: মঙ্গলবার দুপুরেই হঠাৎ দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ভারী বৃষ্টিপাতে ভিজেছে কলকাতা-সহ শহরতলি। নবান্ন থেকে জানানো হয়েছে যে রাজ্য প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কা রয়েছে। ইতিমধ্যেই নবান্ন থেকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তাই বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের সমস্ত কর্মীদের রাস্তায় নামতে বলা হয়েছে নবান্ন থেকে। রাজ্যে ইতিমধ্যেই থাবা বসিয়েছে মৌসুমি বায়ু। তাঁর প্রভাবেই সপ্তাহের শুরুতেই বিপর্যয়ের মুখে রাজ্যবাসী। ইতিমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গের বেশিরভাগ জায়গায় বিশেষ করে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হয়ে গিয়েছে। এবারে উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস।

পাশাপাশি দুর্যোগ এখনও কাটেনি বলে জানা গিয়েছে। হাওয়া অফিস সূত্রে জানা গিয়েছে যে পুরুলিয়া,দুই চব্বিশ পরগনা,দুই মেদিনীপুরের পাশাপাশি আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। ইতিমধ্যেই রাজ্যের সেচমন্ত্রী ডাঃ সৌমেন কুমার মহাপাত্র নবান্ন আগামী বুধবার পাঁচটি জেলার জেলাশাসকদের নিয়ে বৈঠকে বসার কথা জানা গিয়েছে। কার্যত বৃষ্টির পাশপাশি বজ্রবিদ্যুৎ-এর সম্ভাবনা জানিয়ে দিয়েছে হাওয়া অফিস। নবান্ন থেকে জেলার সব জেলাশাসকদের সতর্ক করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যে রাজ্যে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমী বায়ু অবস্থান করছে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জুড়ে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। তবে ক্রমশ তা উত্তরের দিকে সরে গিয়ে দার্জিলিং,কালিম্পং ও আলিপুরদুয়ারের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here