ডেস্ক: বিশ্বের সবথেকে স্থূলকায় কিশোরকে চেনেন ? তাহলে এবার চিনে নিন। দিল্লির বছর ১৪’র মিহির জৈন। এখন তার ওজন ২৩৭ কেজি। চিকিৎসকরা অস্ত্রপ্রচার করে এখন অবশ্য তার ওজন অনেকটাই কমিয়েছেন। মিহির জৈনের এই ওজন বৃদ্ধি নিয়ে বেশ শঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন তাঁর পরিবারের লোকজন। নিরুপায় হয়ে চিকিৎসকের দারস্থ হন ওই কিশোরের মা পূজা জৈন। চিকিৎসকেরা পরামর্শে কড়াকড়ি ডায়েট চার্টের মধ্যে তাকে তাকে রাখা হয়েছিল।

মিহিরের মা পূজা জৈন বলেন, ২০০৩ সালে জন্ম হয় মিহিরের। সেই সময় তাঁর ওজন ছিল আড়াই কেজি। হঠাৎই বাড়তে থাকে তাঁর ওজন। ৫ বছর বয়সে ওজন ছিল ৬০-৭০ কেজি। যা পরিবারের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। ধীরে ধীরে ওজন এতটাই বাড়তে থাকে যে রাস্থায় বেরোনো বন্ধ হয়ে যায়। দিন এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে ক্রমশ বিছানা নির্ভর হয়ে পড়ে মিহির। ক্লাশ ২এর পর আর স্কুলে যাওয়া হয়নি তাঁর।

বডি মাস ইনডেক্স বা বিএমআই এর উপরে নির্ভর করে কোনও মানুষকে রোগা বা মোটা বলা হয়। সাধারণত বিএমআই ১৮ থেকে ২২ থাকে সাধারণ মানুষের। কিন্তু সেই জায়গায় মিহিরের বিএমআই ছিল ৯২ এর বেশি। যা দেখে চিকিৎসকরাও বেশ বিপাকে পড়েছিলেন। শেষে গ্যাস্ট্রিক বাইপাসের অস্ত্রোপচারের পর ৫ ফুটের মিহিরের ওজন দাড়ায়িছে বর্তমানে ১৬৫ কেজি। পাশাপাশি মিহিরের চিকিৎসক প্রদীপ চৌবে এখন খাবারের তালিকা বেঁধে দিয়েছেন। সেইমত চললে মিহিরের ওজন ১০০ কেজির নীচে নামানো সম্ভব হবে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here