news national

মহানগর ডেস্ক:  ভারতে করোনা সংক্রমণের ক্রমেই অবনতি হয়েছে। পরিস্থিতি ক্রমেই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশ, কেরল, কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, পঞ্জাব, গুজরাটে করোনার কোপ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মধ্যপ্রদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। মধ্যপ্রদেশে বুধবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন চার হাজারের বেশি মানুষ। এরপরেই মধ্যপ্রদেশে রাজ্যের বেশ কিছু অঞ্চলে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জারি করেছে নাইট করফিউ।

মধ্যপ্রদেশে করোনা সংক্রমণের হার ১২ শতাংশে পৌঁছে গিয়েছে। যা চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। রাজ্যের সমস্ত শহরাঞ্চলে নাইট কারফিউ জারি করা হয়েছে। এছাড়াও চিন্নাদ্বারা জেলা জুড়ে আট দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ৮ এপ্রিল রাত আটটা থেকে এই লকডাউন জারি হবে বলে মধ্যপ্রদেশ সরকাররে তরফে জানানো হয়েছে। ১৬ এপ্রিল সকাল ছয়টা পর্যন্ত এই লকডাউন চলবে বলে জানা গিয়েছে। সরকারি অফিস পাঁচদিন খোলা থাকবে। বাকি দুদিন সমস্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ মধ্যপ্রদেশ সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। মধ্যপ্রদেশ সরকার বেশ কিছু অঞ্চলকে কোনটেইমেন্ট জোন ঘোষণা করেছেন। সেখানে কঠোর লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে।

মধ্যপ্রদেশের মধ্যমন্ত্রী শিবরাজ চৌহান রাজ্যবাসীকে আশ্বাস দিয়ে জানিয়েছেন, রাজ্যে অক্সিজেনের ঘাটতি নেই। করোনায় দরিদ্র পরিবারকে বিনামূল্যে ওষুধ দেওয়া হবে বলেও মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের মধ্যে ইন্দোরে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। বুধবার ইন্দোরে করোনায় ৮৬৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। চৌহান আশ্বাস দিয়েছেন, রাজ্যে করোনার ওষুধ যথেষ্ট রয়েছে। তবে করোনা মোকাবিলা করতে করোনা বিধি মেনে চলতে হবে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here