rahul
কেন্দ্রকে ফের বিঁধলেন রাহল গান্ধি
rahul
প্রধানমন্ত্রীকে এইভাবেই আক্রমণ করেন রাহুল।

মহানগর ডেস্ক: সিকিমের নাকু লা-য় চিনা অনুপ্রবেশ রুখে দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী তবু প্রধানমন্ত্রী  নিশ্চুপ কেন? তা নিয়েই এবার প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গাঁধী। সোশ্যাল মিডিয়া সাইট টুইটারে প্রধানমন্ত্রীকে সরাসরি আক্রমণ করে তিনি লেখেন, ‘চিন আগ্রাসন বাড়িয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ার চেষ্টা করছে কিন্তু প্রধানমন্ত্রী একটা শব্দও খরচ করছেন না। একমাস ধরে তিনি মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন।’

‘চিনা সমস্যার’ সমাধান নিয়েও নিজের বক্তব্য রাখেন রাহুল। তিনি বলেন, ‘ভারতের প্রধান শক্তি হতে পারে শক্তিশালী অর্থনীতি উন্নত প্রযুক্তি-পরিকাঠামো, যুবকদের কর্মসংস্থান এবং সামাজিক সম্প্রীতি।’

এরপরেই তিনি চাঁচাছোলা ভাষায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে লেখেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নতি না করে কতিপয় ধনী ব্যবসায়ীদের লাভ দেখছেন। আমাদের দেশ যদি ওইসব বিষয়ে উন্নত হত তবে চিনের সাহস হত না অনুপ্রবেশ করার।’

প্রসঙ্গত, গালওয়ানে ভারত এবং চিনা সেনার সংঘর্ষের রেশ কাটেনি এখনও। এর মধ্যেই এ বার সিকিম সীমান্তে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল দুই দেশের বাহিনীর জওয়ানরা। সেনা সূত্রের খবর, সিকিম দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল এক দল চিনা সেনা। কিম্তু ভারতীয় বাহিনীর প্রবল বাধায় শেষ পর্যন্ত পিছু হঠতে বাধ্য হয় তারা।  সংঘর্ষে দু’পক্ষেরই বেশ কয়েক জন জখম হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, গালওয়ানের কায়দাতেই গত সপ্তাহে উত্তর সিকিম সীমান্তের নাকু লা এলাকা দিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা চালিয়েছিল চিনা সেনা। সেই সময় আবহাওয়া খারাপ ছিল। সেই সুযোগে ভারতের ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করে লাল ফৌজ। কিন্তু ভারতীয় বাহিনী তাদের প্রবল ভাবে বাধা দেয়। দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট বেধে যায়। চিনা ফৌজের অন্তত ২০ জন সদস্য ওই সংঘর্ষে জখম হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তারা শেষ পর্যন্ত পিছু হঠতে বাধ্য হয়। জখম হয়েছেন ৪ ভারতীয় জওয়ানও।

ঘটনার জেরে থমথমে ওই এলাকার পরিস্থিতি। খারাপ আবহাওয়ার মধ্যেও সীমান্তে কড়া নজরদারি চালাচ্ছেন ভারতীয় জওয়ানরা। গলওয়ানের সংঘর্ষের পর নাকু লা-র ওই ঘটনায় ভারত-চিন সীমান্ত সঙ্ঘাত ফের ভিন্ন মাত্রা পেল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here