mrugesh motera

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সোমবার সারা দিন জুড়ে দেশের নজর আটকে ছিল আহমেদাবাদের দিকে। গুজরাটের রাজধানীতেই বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উদ্বোধন এদিন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যা ঘিরে চমকের অভাব ছিল না। মনোরঞ্জনের নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন তো ছিলই। পাশাপাশি গোটা দেশেরই গণ্যমান্য অতিথিদের ডাক পাঠানো হয়েছিল। উপস্থিত ছিলেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এছাড়াও বিসিসিআই সচিব জয় শাহ আমন্ত্রিত ছিলেন মোতেরায় ‘নমস্তে ট্রাম্প’-এ। তাঁর বাবা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও ছিলেন। গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী সহ বাকি আমলারা তো ছিলেনই। কিন্তু যার হাত ধরে এই মোতেরা স্টেডিয়াম গুটিগুটি পায়ে পথ চলা শুরু করেছিল, তিনিই ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পাননি।

কথা হচ্ছে মোতেরা স্টেডিয়ামের প্রাণপুরুষ মরুগেশ জয়কৃষ্ণকে নিয়ে। ১৯৮৩ সালে তিনিই মোতএরার সর্দার প্যাটেল ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি তৈরি করেছিলেন। সেই সময় মাত্র ৮ মাস ১৩ দিনে এই মোতেরা স্টেডিয়ামটি তৈরি করেছিলেন মরুগেশ। অথচ আজকের অনুষ্ঠানে তিনিই ব্রাত্য রয়ে গেলেন। মরুগেশ সেই সময় ছিলেন গুজরাট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সহ সভাপতি। গুরু দায়িত্ব সামলেছেন গুজরাট ক্রিকেট সংস্থার। খুবই স্বল্প সময়ে কম বাজেটে তৈরি করেছিলেন এই স্টেডিয়ামের আগের সংস্করণটি। সেই স্টেডিয়ামে দর্শকাসন ছিল ৫৩ হাজার। যা এখন বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষ ১০ হাজার। গায়ে গতরে বৃদ্ধি পেলেও মোতেরা কিন্তু নিজের প্রাণপুরুষকেই ভুলে গিয়েছে। এহেন বড় মাপের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ না পাওয়ায় কিছুটা ব্যাথিত মরুগেশ। কিন্তু সে সব ভুলে এখন তিনি ওই স্টেডিয়ামের সাফল্যকেই বড় করে দেখতে চাইছেন তিনি।

সংবাদ পত্র মুম্বই মিররকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘না, আমায় তো আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। কিন্তু মোতেরাকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্টেডিয়াম তৈরি হতে দেখা দেখা আমার জন্য অন্য যে কোনও প্রাপ্তির থেকে অনেক অনেক বড়। আমায় আমন্ত্রণ জানানো হোক বা না হোক, মোতেরায় এত বড় অনুষ্ঠান হচ্ছে এটাই আসল।’ মরুগেশ যাই বলুন না কেন, ‘নমস্তে ট্রাম্প’-এর মতো বড় মাপের অনুষ্ঠানে এই স্টেডিয়ামের প্রাণপুরুষকেই আমন্ত্রণ না জানানো ‘এক বালতি দুধে এক ফোঁটা চোনা’ শামিল হওয়ার মতো।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here