শুভেন্দুর ট্র্যাক রেকর্ড খারাপ, খড়্গপুরের দায়িত্ব নিয়েছে মানেই তৃণমূল হারবে! উবাচ মুকুলের

0
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, খড়্গপুর: উপনির্বাচন নিঃশ্বাস ফেলছে ঘাড়ে। তবে প্রচার একই প্রার্থীর জন্য করা হলেও মুকুল রায় ও দিলীপ ঘোষ আলদাভাবেই প্রচার করছেন। রবিবার প্রথমে খড়্গপুরের গোলবাজারে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনায় বসে অস্বস্তির মুখে পড়েন দিলীপ ঘোষ। এরপর খড়্গপুর সদর বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝাঁ-র হয়ে প্রচারে নামেন মুকুল রায়। সেখানে এসে তিনি দাবি করেন, প্রশান্ত কিশোরই এখন তৃণমূল সভাপতি।

‘মমতা এখন আর তৃণমূলের সভানেত্রী নেই, এখন তৃণমূলের সভাপতি প্রশান্ত কিশোর৷’ খড়্গপুরে দলীয় প্রার্থীর প্রচারে কটাক্ষ করেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। তিনি বলেন, ‘পিকের দলের সঙ্গে লড়াই হচ্ছে বিরোধীদের৷ মমতার দল তো আর নেই। তৃণমূল হচ্ছে এখন মমতা-অভিষেকের কোম্পানি, ওটা দল নেই।’

তিন বিধানসভা উপনির্বাচনে বাম-কংগ্রেস জোট বেঁধে লড়ায় বিজেপির বরং সুবিধাই হবে, দাবি মুকুলের। তিনি বলেন, ‘গত লোকসভাতে কংগ্রেস এবং সিপিএম আলাদাভাবে লড়াই করেছিল৷ তাই সেবার কংগ্রেসের ভোট আর সিপিএমের ভোট দুটো একত্রিত করে লড়াইটা হয়েছিল। ২০১৬-তে আমরা যে ভোটে জয়লাভ করেছিলাম, তার থেকে বেশি ব্যবধানে জয়লাভ করবো।’

আত্মপ্রত্যয়ী মুকুল রায় এদিন তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুভেন্দু অধিকারিকেও কটাক্ষ করেন৷ তিনি বলেন, শুভেন্দু অধিকারীর ট্র্যাক রেকর্ড খুব খারাপ। তিনি যেখানে যেখানে দায়িত্বে ছিলেন সেখানে সেখানেই তাঁর দলের প্রার্থী পরাজিত হয়েছে। কাজেই খড়্গপুরের দায়িত্ব তিনি নিয়েছেন যখন ভোটে তৃণমূল হারবে। রবিবার সন্ধায় দলীয় বিজেপি প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝাঁ-র নির্বাচনী প্রচারে উপস্থিত হয়ে খড়্গপুর শহর সংলগ্ন সাহাচক থেকে খরিদা পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার পথ হুডখোলা জিপে প্রার্থীকে সঙ্গে নিয়ে প্রচার চালান মুকুল রায়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here