FotoJet-50

ডেস্ক: রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক জানিয়েছেন, মোটের ওপর শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে প্রথম দফার ভোট। বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেও রাজ্য পুলিশের সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেছেন। কিন্তু বিজেপির দাবি, ভোট লুট করা হয়েছে। পাশাপাশি দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে রাজ্যের প্রতিটি বুথেও কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়ে এদিন মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের দফতরের সামনে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি নেতারা।

এদিন দুপুরে নির্বাচন কমিশনের অফিসে ঢুকে বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল। এই দলে বিজেপি নেতা মুকুল রায়, জয়প্রকাশ মজুমদার, শঙ্কুদেব পন্ডারা ছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, গতকাল প্রথম দফার নির্বাচনে ভোট লুট হয়েছে। ভোট লুঠ কেন করতে দেওয়া হল? মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক আরিজ আফতাবের সামনে এ হেন প্রশ্ন তুলেই তাঁর ঘরের মেঝেতে বসে ধর্না শুরু করেন মুকুলরা। বিজেপি নেতাদের আরও দাবি, দ্বিতীয় দফার ভোটে প্রতিটি বুথে মোতায়েন করতে হবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। এই দাবি তুলেই মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতরের সদর দরজা বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে বিজেপি। বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক ও মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন মুকুলরা।

বৃহস্পতিবার প্রথম দফার ভোট শেষ হওয়ার পর সাংবাদিক বৈঠকে অবশ্য রাহুল সিনহা দাবি করেন, কয়েকটা ঘটনা ছাড়া মোটের উপর ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে। কিন্তু এদিন ধর্নায় বসার পর থেকে বিজেপির বক্তব্য, অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সঞ্জয় বসুকে অপসারণ করতে হবে। নির্বাচন কমিশন তৃণমূলের পার্টি হয়ে গিয়েছে বলেও স্লোগান তোলা হয় বিজেপির পক্ষ থেকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here