kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নারদা কাণ্ডের জন্য ডাক এসেছিল শুক্রবারে। তবে সে ডাকে সাড়া দেননি বিজেপি নেতা মুকুল রায়। পরিবর্তে শনিবার দেখা করবেন তিনি বলে জানিয়েছিলেন। কথামতো শনিবার সকালে তর্পণ সেরে শুদ্ধ চিত্তে সিবিআই দফতর নিজাম প্যালেসে হাজিরা দিলেন মুকুল রায়। হাজিরা দিয়ে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরলেন সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই! বললেন, মমতাই তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন।

নিজাম প্যালেস থেকে বেরিয়ে প্রথম থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন মুকুল রায়। বিজেপি নেতা বলেন,

‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবসময় বলেন তদন্তকারী সংস্থার সঙ্গে সহযোগীতা করা যাবে না। আর আমি বলি সবসময় তাদের সঙ্গে সহযোগীতা করা এক আইন মান্যকারী নাগরিকের কর্তব্য। যতবার দরকার তদন্তকারী সংস্থা আমাকে ডাকবে, আমি ততবার তাদের সঙ্গে সহযোগীতা করব। জোর দিয়ে বলছি, আমি সবসময় তাদের সাহায্য করব কারণ আমি জানি এই কাণ্ডে আমার কোনও ভূমিকা নেই। কোনও জায়গায় দেখা যায়নি যে আমি টাকা নিচ্ছি। সুতরাং, কেউ বলতে পারবে না আমার কোনও অংশ এই ঘটনায় রয়েছে। তবে আমার বিরুদ্ধে একটা বড় ষড়যন্ত্র হচ্ছে। সেটা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারণ ভ্রষ্টাচারে যাদেরই নাম আসছে, তাদের বলা হচ্ছে মুকুল রায়ের নাম নাও।’

পাশাপাশি তিনি এও জানান, এই নারদা কাণ্ডে হাজিরার জন্য তাঁকে আর ডাকা হয়নি আপাতত।

প্রসঙ্গত, মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ এসএমএইচ মির্জা গ্রেফতার হওয়ার পরই নজর যায় মুকুলের দিকে। অভিযোগ রয়েছে, মুকুলই মির্জার সঙ্গে ম্যাথুর দেখা করিয়েছিলেন। মুকুলকে ফুটেজে টাকা নিতে না দেখা গেলেও আদতে দু’জনে মিলেই কাজটা সেরেছিলেন বলেই অনুমান তদন্তকারীদের। কেন ওই টাকা নেওয়া হয়েছিল এবং কিসের বৈঠক হয়েছিল সব জানতেই আজ মির্জার সঙ্গে মুখোমুখি জেরায় বসানো হয়েছিল মুকুল রায়কে। যদিও মুখোমুখি জেরার বিষয় কার্যত এড়িয়ে যান বিজেপি নেতা। বলেন, এই বিষয়টি তিনি বলতে পারেন না, সেটা তদন্তকারী সংস্থার বিষয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here