গলদ থাকলেও মেনেই নিক মুসলিমরা, অযোধ্যা ইস্যুতে অটলের অর্থমন্ত্রীর উপদেশ

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:  অযোধ্যা মামলার রায়ে গলদ আছে বলে বিশ্বাস করেন অটল বিহারীর মন্ত্রিসভার অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা৷ বিহারের এই প্রাক্তন বিজেপি সংসদ অবশ্য মনে করেন এই নিয়ে মুসলিমদের অযথা ঝামেলা না করে রায় মেনে নেওয়া উচিত৷তাঁর কথায়, ‘অযোধ্যা রায়ে বেশ কিছু গলদ রয়েছে। তবে আমি দেশের মুসলিমদের কাছে আবেদন করছি যাতে তারা রায়টি মেনে নিয়ে এগিয়ে চলেন। কারণ সুপ্রিমকোর্টের রায়ের পর আর কোনও রায় হতে পারে না।’

রবিবার মুম্বইতে অনুষ্ঠিত লিট ফেস্টে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই কথা বলেন তিনি। ‘বাবরি মসজিদ ধ্বংসে অনুতপ্ত আডবাণী’ পাশাপাশি যশবন্ত সিনহা জানান, যে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের বিষয়ে বিজেপির সেই সময়ের শীর্ষ নেতাদের সবাই ক্ষমাপ্রার্থী। তিনি দাবি করেন বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনা ঘটানয় লালকৃষ্ণ আডবাণী নিজেও অনুতপ্ত। এছাড়া তিনি বলেন, “১৯৯৩ সালে আমি যখন বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলাম, আমি জানতাম যে আমি একটি সাম্প্রদায়িক দলে যোগ দিচ্ছি। তবে সেই সময় আমার মনে হয়েছিল দুর্নীতিগ্রস্ত দলে (কংগ্রেস) যোগ দেওয়ার থেকে বিজেপিতে যোগ করা ভালো।’ সুপ্রিমকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন এদিকে রবিবার এক বৈঠকের অযোধ্যা নিয়ে সুপ্রিমকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন জমা দেবে জমিয়ত উলেমায়ে হিন্দ। অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের হয়ে বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন মৌলনা আরশাদ মাদানি। সেই বৈঠক থেকে বেরিয়ে আসার সময় তিনি জানান যে তাঁরা আগে থেকেই ১০০ শতাংশ নিশ্চিত যে তাদের আবেদন খারিজ করে দেওয়া হবে। তবুও রিভিউ পিটিশন দাখিল করবেন তাঁরা।

চলতি মাসের ৯ তারিখ অযোধ্যা মামলা নিয়ে ঐতিহাসিক রায় গোষণা করেছিল দেশের শীর্ষ আদালত৷ সুপ্রিম রায় অনুসারে বিতর্কিত জমিতে রামমন্দির হবে৷ মুসলিমদের আলাদা করে ৫ একর জমি দেওয়া হবে৷ পাশাপাশি শীর্ষ আদালত জানায়, ১৯৯২ সালে মসজিদ ভাঙা বেআইনি ছিল। তথ্যের ভিত্তিতে আদালতের রায় ঘোষণা আদালতের ১০৪৫ পাতার রায়তে বলা হয়, জমির উপর মালিকানার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মুসলিমদের দেওয়া প্রমাণের চেয়ে আরও ভালো প্রমাণ দিয়েছিল হিন্দু পক্ষ। জমির মালিকানা কখনও বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে দেওয়া যায় না। মালিকানা স্থির করতে দরকার প্রমাণ। তাই বিতর্কিত জমি মন্দিরের জন্য হস্তান্তর করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here