news international

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিগ ই জামাতের ধর্মীয় অনুষ্ঠান থেকে ফিরে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এলাকার বেশ কিছুজন। আর সেই কারণেই আক্রোশ গিয়ে পড়ে সংখ্যালঘু এক ফল ব্যবসায়ীর ওপর। জোর করেই বাজারে তার ফলের দোকান বন্ধ করে দেন কিছু ব্যক্তি। আর এই অভিযোগ সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসল উত্তরাখণ্ডের পুলিশ। ঘটনায় অভিযুক্ত প্রত্যেকের বিরুদ্ধে দায়ের হল এফআইআর।

ঘটনাস্থল উত্তরাখণ্ডের হালদোয়ানি। স্থানীয় থানার হাউজ অফিসার সঞ্জয় কুমার জানান, ‘গোটা ঘটনাটির একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। তা থেকেই মণীশ খাটি, কমল নেগী, মনোজ সিং, হেমেন্দ্র গোস্বামী, রাকেশ তাপোলা ও চমন গোস্বামী নামে ছয় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই ফল বিক্রেতার বাড়ি বন্দুলপুরায়। সেখানে পাঁচজন জামাতি করোনায় আক্রান্ত। এটা জানার পরেই ওই ফল বিক্রেতার দোকান অভিযুক্তরা জোর করে বন্ধ করে দেয়।’

‘আমরা ঘটনাটি সামনে আসতেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। তাদের সকলের বিরুদ্ধে লক ডাউন অমান্য করা এবং বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত অভিযুক্তরা পলাতক’, যোগ করেন ওই অফিসার।

উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত উত্তরাখণ্ডে ৩১ জন করোনায় আক্রান্ত। এদের মধ্যে আবার ২৪ জন নিজামুদ্দিন ফেরত। এই ঘটনার গুরুত্ব বুঝে করোনা সংক্রামিত এলাকার মানুষদের গতিবিধির ওপর পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। অন্যদিকে, পুলিশের দেওয়া সময়সীমার মধ্যে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য হাজির না হওয়ায় দুই জামাতির বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছে উত্তরাখণ্ডের পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here