ডেস্ক: ‘কে তুমি নন্দিনী, আগে তো দেখিনি!’ এ হেন ভাষা ব্যবহার করেই দক্ষিণ কলকাতার বাম প্রার্থী নন্দিনী চক্রবর্তীকে রবিবারের দলীয় সভা থেকে কটাক্ষ করেছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে রাজনৈতিক মহলে। এই ধরনের কটু ভাষা ব্যবহারের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বিরোধীরা। বিশেষ করে যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূলের কংগ্রেসের চিফ একজন মহিলা। তাঁর দলের কর্মীরাই একজন মহিলা প্রার্থীকে কী ভাবে এমন ভাষা ব্যবহার করে আক্রমণ করতে পারেন, সেই প্রশ্ন তুলছে বাম শিবির।

ফিরহাদের এই ভাষা ব্যবহারের বিরোধিতা করলেও পাল্টা তাঁকে নিয়ে বিশেষ পাত্তা দিতে রাজি নন নন্দিনীদেবী। কিন্তু কলকাতার মেয়রকে জবাব দিতে ছাড়েননি তিনি। এই মন্তব্যের পাল্টা দিয়ে যাদবপুরের প্রাক্তন অধ্যাপিকা বলেন, ‘ছোটবেলায় দেখতাম লুম্পেনরা এই গান গেয়ে ইভটিজিং করত। এখন দেখছি সেই লুম্পেন সংস্কৃতিই রাজ্যের মন্ত্রীর মুখে।’ নন্দিনী আরও বলেন, মন্ত্রী যে গানের লাইনটি ব্যবহার করেছেন আমার সম্পর্কে সেটি আমার প্রিয় নায়কের লিপে একটি জনপ্রিয় বাংলা গান। কিন্তু সেই গানই লুম্পেন রাজনীতি হয়ে ফিরে এসেছে মন্ত্রীদের মুখে।’

প্রসঙ্গত, রবিবার নজরুল মঞ্চে ছিল তৃণমূলের কর্মীসভা। সেখানেই বামেদের দেওয়া প্রার্থীকে মৌখিক আক্রমণ করতে গিয়ে ভাষা ব্যবহার অসংযত হয়ে পড়েন ফিরহাদ। সত্তরের দশকের বাংলা গানের সংলাপ ধার করে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী বলেন, ‘সিপিএমের তো- কে তুমি নন্দিনী আগে তো দেখিনি। তাকে তো দেখা যায় না। ভোট এলে দেখা মেলে।’ বিজেপিকে আক্রমণ করতে আরও এককাঠি উপরে ছিলেন ববি। ভারতীয় জনতা পার্টি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা না করলেও আক্রমণে আগাম শান দিয়ে তাঁর বক্তব্য ছিল, ‘বিজেপিও নিশ্চয়ই এই কেন্দ্রে বিদেশি কোনও মাল নিয়ে আসবে।’ মনে করিয়ে দেই, তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও প্রার্থী ঘোষণার সময় বলেছিলেন, ‘এত মেয়ে প্রার্থী! আমার তো ভাবলেই গায়ে কাঁটা দিচ্ছে।’ সেই দলের প্রথম সারির নেতার মুখেই এ হেন বচন শুনে রীতিমতো স্তম্ভিত ও ক্ষুব্ধ বুদ্ধিজীবী মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here