netaji
নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু
netaji
নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু

মহানগর ডেস্ক: নেতজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী ঘিরে টুইট যুদ্ধে জড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এক জনের টুইটে ‘দেশনায়ক দিবস’ পালনের কথা। অন্য জনের টুইট ‘পরাক্রম দিবস’ নিয়ে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং নরেন্দ্র মোদী শনিবার সকালে যে টুইট করলেন, তা থেকে আরও একবার স্পষ্ট নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন ঘিরে দুই রাজনীতিবিদের অবস্থান। আজ শনিবার সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন উপলক্ষে শহরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও একগুচ্ছ কর্মসূচি রয়েছে। মোদী-মমতা সাক্ষাতের সম্ভাবনাও রয়েছে। তার আগে সকালে টুইট করে মমতা লেখেন, ‘দেশনায়ক সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মদিনে তাঁকে শ্রদ্ধা জানাই। উনি ছিলেন প্রকৃত নেতা। মানুষের ঐক্যে বিশ্বাসী ছিলেন। আমরা আজকের দিনটা ‘দেশনায়ক দিবস’ হিসাবে পালন করছি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে বর্ষব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে’। অন্য দিকে, শনিবার সকালেই মোদীর টুইট, ‘মহান মুক্তিযোদ্ধা ও ভারতমাতার সত্যিকারের পুত্র নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনে শত প্রণাম। দেশের স্বাধীনতার জন্য তাঁর ত্যাগ এবং আত্মনিবেদন সব সময় স্মরণ করা হবে’। এর পর হ্যাশট্যাগ করে লেখেন ‘পরাক্রম দিবস।’

মমতার দ্বিতীয় টুইট বলছে, ‘রাজারহাটে একটি স্মৃতিশৌধ নির্মাণ করা হবে। নামকরণ হবে ‘আজাদ হিন্দ ফৌজ’-এর নামে। এ ছাড়া নেতাজির নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো খরচ রাজ্য সরকার বহন করবে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে বিদেশের নানা বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ থাকবে’।

তৃতীয় টুইটে শনিবারের কর্মসূচির কথা লেখেন মমতা। ‘এক বৃহৎ পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে আজ। চলতি বছর প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডও নেতাজির নামেই উৎসর্গ করা হবে। শনিবার সওয়া ১২-য় সাইরেন বাজানো হবে। প্রত্যেককে আর্জি জানাচ্ছি, বাড়িতে শঙ্খ বাজাবেন’। সেই সঙ্গে মমতা আরও একবার ২৩ জানুয়ারি জাতীয় ছুটি ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। টুইটে লেখেন, ‘২৩ জানুয়ারির দিনটিকে জাতীয় ছুটি ঘোষণা করুক কেন্দ্র’। এর পর তিনি হ্যাশট্যাগ করে লেখেন ‘দেশনায়ক দিবস।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here